সোমবার, ০৩ অগাস্ট ২০২০, ০৫:৪০ অপরাহ্ন

ধামইরহাটে ইউএনও’র হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ে থেকে রক্ষা পেল ৭ম শ্রেণির শিক্ষার্থী

mm
আবু মুছা স্বপন, নওগাঁ প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় মঙ্গলবার ২১ জুলাই, ২০২০
  • ১২৩বার পঠিত

নওগাঁর ধামইরহাটে উপজেলা প্রশাসনের নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও)’র হস্তক্ষেপে বাল্য বিয়ে থেকে রক্ষা পেল ৭ম শ্রেণির এক শিক্ষার্থী। অল্প বয়সে মেয়ের বিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করায় ৩ জনের জেল প্রদান করা হয়েছে। ঘটনাটি উপজেলার চন্ডিপুর এলাকায়।
জানাগেছে, উপজেলার উমার ইউনিয়নের চন্ডিপুর গ্রামের রেজাউল করিমের মেয়ে চন্ডিপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ৭ শ্রেনির ছাত্রী জীবন আক্তার রুহী (১৩)’ আত্নীয়ের বাসায় চকমহেশ গ্রামে বেড়াতে যায়। সেখানে একই গ্রামের ফুফাতো ভাই চকমহেশ গ্রামের আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে রশিদুল ইসলাম (২৬) জোর করে মেয়েটির সাথে বিয়ের আয়োজন করে। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে ২১ জুলাই রাত অনুমান ১২ টার দিকে উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিষ্ট্রেট গনপতি রায়, ওসি আবদুল মমিন, ইন্সপেক্টর (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ, এস.আই মহসীন ও মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মিজানুর রহমান ঘটনাস্থলে উপস্থিত হোন এবং বিয়ের আয়োজন পন্ড করে দেন।

Adunit1

এ সময় নাবালিক কিশোরীকে বিয়ে করতে আসার অপরাধে বর রশিদুল ইসলাম (২৬) এর ৬ মাস জেল, বিয়ের সহযোগিতা করায় বোন লাভলী আকতারকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ৩ মাসের জেল, এবং বরের অভিভাবক (চাচী) আতোয়ার রহমানের স্ত্রী টপি আরাকে বাল্য বিয়েতে সহযোগীতার দায়ে ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ডাদেশ প্রদান করেন।
এ বিষয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান মো. আজাহার আলী জানান, করোনা কালীন মুহুর্তে জীবনের ঝূকি নিয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার গনপতি রায় নিয়মিত ভাবে বাল্য বিবাহ বন্ধে যে ভাবে জোরালো ভূমিকা রেখে যাচ্ছেন, তা স্বরণীয়, বাল্য বিয়ে বন্ধে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সহযোগিতা ও অভিভাবক মহলের সচেতনতাই যথেষ্ঠ।

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..