বৃহস্পতিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯:৪৮ পূর্বাহ্ন

গাইবান্ধায় করোনা আক্রান্ত বেড়ে ৯০৩ : মৃত্যু ১৪

mm
প্রকাশক
  • আপডেট সময় বুধবার ২৬ আগস্ট, ২০২০
  • ১০১বার পঠিত


গাইবান্ধায় গত ২৪ ঘণ্টায় ৯ জনের শরীরে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় করোনায় আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা দাঁড়াল ৯০৩। জেলায় এ পর্যন্ত কোভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ১৪ জন। মঙ্গলবার রাতে জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের সবশেষ পরিসংখ্যানে এসব তথ্য পাওয়া গেছে। মঙ্গলবার রাতে পাওয়া রিপোর্ট অনুযায়ী গত ২৪ ঘন্টায় বুধবার (২৬ আগস্ট) পর্যন্ত জেলার ৭ উপজেলায় ৯০৩ জনের শরীরে ধরা পড়েছে করোনা। মারা গেছেন ১৪ জন। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ৬৩২ জন। বিভিন্ন আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন আছেন ২৫৭ জন।

গত ২৪ ঘন্টায় জেলায় নতুন করে আরও ৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। করোনা পরিস্থিতি নিয়ে রীতিমত হিমশিম খাচ্ছে জেলার স্বাস্থ্য বিভাগ। সংখ্যাধিক্য অনুযায়ি বুধবার দুপুরে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত গোবিন্দগঞ্জ উপজেলাতেই সবচেয়ে বেশি ২৮২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এর পরের অবস্থানে গাইবান্ধা সদর উপজেলায় পাওয়া গেছে ২৭৪ জন, পলাশবাড়ী উপজেলায় ৮৭ জন, সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় ৬২ জন, সাদুল্লাপুর উপজেলায় ৮১ জন, সাঘাটা উপজেলায় ৬৫ জন ও ফুলছড়ি উপজেলায় ৫২ জন।

তবে করোনার সংক্রমণের মধ্যেই আশার আলো এর সুস্থতার সংখ্যা। জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ বলছে, জেলায় গত ২৪ ঘন্টায় নতুন করে আরও ৮ জন সুস্থ হয়ে আইসোলেশন থেকে ছাড়পত্র পেয়েছেন। এ পর্যন্ত জেলায় ৬৩২ জন মানুষ সুস্থ হয়ে উঠেছেন ওই রোগ থেকে।

গাইবান্ধায় বর্তমানে আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন ২৫৭ জনের মধ্যে ১১০ জন গাইবান্ধা সদরে, সুন্দরগঞ্জে ৯ জন, সাদুল্লাপুরে ২৬ জন, গোবিন্দগঞ্জে ৫৪ জন, সাঘাটায় ১৮ জন, পলাশবাড়ীতে ১৮ জন ও ফুলছড়িতে ২২ জন রয়েছেন।

জানা গেছে, এখন পর্যন্ত জেলায় মোট ১৪ জন করোনা আক্রান্তরোগী মারা গেছেন। এরমধ্যে গোবিন্দগঞ্জে ৪ জন, সদরে ৩ জন, সাদুল্লাপুরে ২ জন, পলাশবাড়ীতে ৪ জন এবং সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় আরও ১ জনের মৃত্যু হয়েছে।

তবে করোনা সংক্রমণ নিয়ে স্থানীয়রা অনেকটাই অসচেতন। চলাচলে অসতর্কতা এবং সামাজিক দূরত্ব ও বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার স্বাস্থ্যবিধি কেউ সঠিকভাবে মেনে চলছেন না। সাধারণ মানুষ হাঁটবাজার, দোকানপাট ও রাস্তাঘাটে অবাধে চলাচল করছেন। চলছে চায়ের দোকানে আড্ডা। স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালনে কমেছে প্রশাসনের নজরদারিও। এতে করোনার ভয়াবহ সংক্রমণের আশঙ্কা করছেন স্বাস্থ্যসেবা সংশ্লিষ্টরা।


এ জাতীয় আরো খবর..