শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৪:২০ অপরাহ্ন

নীতিবোধ ও অপরাধ প্রবণতা

mm
নূর মোহাম্মদ রিমন, ফিচার রাইটার
  • আপডেট সময় বুধবার ২ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ১৪৬বার পঠিত

সবুজ প্রকৃতিতে ঘেরা আমাদের এই বাংলাদেশ। এ দেশের পতাকার পুরোটাও দখল করে রেখেছে সবুজ রং। সবুজ রংটা প্রকৃতির কাছ থেকে পাওয়া। সবুজ এর কাছ থেকে মানচিত্রে ঠাঁই দিতে রং টাকে নিতে পেরেছি কিন্তু প্রকৃতির চরিত্র ধারণ করতে আমরা ব্যর্থ। সৃষ্টিকর্তার উপহার এই অক্সিজেন ভাণ্ডার আমাদেরকে নিস্তব্ধ থেকে চিরকাল মানুষের উপকার করতে শেখায় অথচ সবুজে ঘেরা এই বাংলাদেশের মানুষজনের অপরাধ প্রবণতা দিন দিন বেড়েই চলছে। যার ফলশ্রুতিতে জেলখানার কয়েদির সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে কয়েক গুণ।

আমাদের দেশের জেলখানাগুলো ৫০ জনের জায়গায় ২৫০ জন কয়েদি রাখছে। ঠাসাঠাসি, গাদাগাদি করে রাখার কারণে খাদ্য ও অবস্থান নিয়ে জেল কর্তৃপক্ষের অবহেলা এবং দুর্নীতির খবর মাঝে মাঝে প্রকাশ পায়। টিভি অথবা পত্রিকায় নিউজ আসলে জেল ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ সুষ্ঠু তদন্ত পূর্বক প্রতিবেদন দেবেন এবং ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বললেও কখনো এর সমাধান পাননি জেলহাজতের আসামিরা। অবশ্য অতিমাত্রার কয়েদির সংখ্যা এই অবস্থার জন্য দায়ী বলে বিবেচিত।

সবথেকে ভালো উপায় এটাই, প্রত্যেক বাংলাদেশিকে নিজ নিজ অবস্থানে দাঁড়িয়ে অপরাধপ্রবণতা একদম কমিয়ে আনতে হবে। প্রশ্ন হতে পারে, এটা কি সম্ভব??
আমি বলি অবশ্যই সম্ভব। জানলে অবাক হলেও সত্য যে, এই পৃথিবীর অনেক জেলখানা আছে যেখানে কোন কয়েদি থাকেন না। সেসব দেশে কোন অপরাধ নেই, তাই কয়েদির অভাবে জেলখানা বন্ধের জোগাড়। জেলখানার রুম বিভিন্ন কোম্পানির কাছে অফিস হিসেবে ভাড়া দেয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। অপরাধ নেই তাই অপরাধীও নেই, যার ফলশ্রুতিতে নেদারল্যান্ড-এ প্রায় ২০ টিরও বেশী জেলখানা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। পৃথিবীতে এমনও জেলখানা আছে যেখানে কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের চাকুরী টিকিয়ে রাখার জন্য অন্য দেশের কাছে কয়েদি রাখার ব্যাপারে জেলখানা ভাড়া দেওয়া হয়।

অপরাধপ্রবণতা নেই বললেই চলে এমন দেশ ও পৃথিবীতে আছে জেনে অবাক হবার কিছু নেই। আমাদের দেশের খবরের কাগজ খুললেই খুন, গুম, রাহাজানী, মাদক, চুরি, ডাকাতি, সুদ, ঘুষ, ধর্ষণ সহ প্রতিদিন অসংখ্য অপরাধের খবর পাওয়া যায় অথচ অপরাধ বিহীন দেশে বছরে দু’একবার ছোটখাটো ছিঁচকে চুরি করার ঘটনা শোনা যায় এবং সেটা শুনেও সেই দেশবাসী আরো সচেতন ওঠেন।

অপরাধ প্রবণতাকে বাদ দিয়ে ভদ্র থাকার যুদ্ধের কয়েকটি দেশের উদাহরণ জানুন:

ডেনমার্ক: ডেনমার্ক বাসীরা প্রত্যেকেই যেন একটা আইনের বই। ডেনমার্কের রাজধানী তাই পৃথিবীর সবচেয়ে সচেতন স্থান।

আইসল্যান্ড: এদেশের অপরাধপ্রবণতা এতই কম যে, কোন বাড়ি বা কোন দোকানে তালা লাগানো হয় না। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী অথবা পুলিশের কাছে কোন অস্ত্র থাকে না।

জাপান: জাপানকে পৃথিবীর সবচেয়ে সুরক্ষিত দেশগুলোর একটি বলা হয়।

লাক্সেমবার্গ: ইউরোপের খুব ছোট্ট একটি দেশ। সৌন্দর্যের কারণে এ দেশকে ইউরোপের বেলকুনি বলা হয়। অপরাধ নেই বললেই চলে তাই গোটা দেশ মিলে মাত্র দুটি নামমাত্র জেলখানা।

সিঙ্গাপুর: শিক্ষিত জাতি এবং ধনী মানুষের দেশ সিঙ্গাপুর। অনেক কঠিন নিয়মের দেশ বলা হয় একে। রাস্তায় কেউ কাগজ ফেললে ১০ হাজার টাকা জরিমানা পাশাপাশি একদিন ওই গোটা রাস্তা পরিষ্কারের দায়িত্ব অপরাধীকে নিতে হয়।

এসব দেশ আমাদের কাছে উদাহরণস্বরূপ। তাদের কাছে শেখার আমাদের অনেক কিছুই আছে। আমরা বাংলাদেশিরা চাইলে আমাদের দেশকে একটি উদাহরণের দেশে রূপান্তরিত করতে পারি। আমাদের প্রত্যেকের উচিত অপরাধ প্রবণতাকে কমিয়ে স্বাভাবিক জীবন-যাপনে উদ্বুদ্ধ হওয়া।

আসুন সবাই প্রকৃতির কাছে শিক্ষা নেই, ভালোদের নীতি শিখি। সৃষ্টিকর্তা ও তার প্রকৃতির রং অর্থাৎ সবুজের মান বাঁচাই।


এ জাতীয় আরো খবর..