শনিবার, ২৮ নভেম্বর ২০২০, ০২:৩৭ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
খাগড়াছড়ি-ঢাকা রুটে নতুন সংযোজন বিলাসবহুল গ্রীন লাইন সেবা পানছড়িতে ব্রীকফিল্ডে সন্ত্রাসী হামলা চকরিয়া-পেকুয়ায় বনের কাঠে তৈরী হচ্ছে অবৈধ ফিশিং বোট ধামইরহাটে সোনার বাংলা সংগীত নিকেতনের বার্ষিক বনভোজন ধামইরহাটে ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন কুড়িগ্রাম সদরে হেরোইনসহ ৩ যুবক আটক চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কে যাত্রীবেশে চলন্ত বাসে ডাকাতি, গুলিবিদ্ধসহ আহত ৯ রাজশাহীতে বালু তুলতে পদ্মা ভরাট করে রাস্তা নির্মাণ পৌর নির্বাচনকে সামনে রেখে শুরু হয়েছে প্রার্থীদের দৌড়-ঝাপ জেলের জালে ২৬ কেজি ওজনের কাতল, বিক্রি হলো ৩০ হাজার টাকায় কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজেলায় কন্যা সন্তান জন্ম দেয়ায় পরিবারের খোঁজ খবর নেয়না স্বামী কুড়িগ্রামের কৃষকেরা ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন ইরি-বোরো মৌসুমের ধানের বীজতলা তৈরিতে কুড়িগ্রাম জেলার ফুলবাড়ী উপজেলায় মাস্ক ব্যবহার না করায় জরিমানা ২২জনের সাংবাদিক মনিরুল ইসলামের কবিতা: প্রিয়া ঘোড়াঘাট থানা পুলিশের চেষ্টায় বাবা ফেরত পেল নিখোজ ১০ বছরের মাদ্রাসা ছাত্র হৃদয়কে

অতীতের রেকর্ড ভঙ্গ করেছে, কক্সবাজার উত্তর বন বিভাগের বনাঞ্চল উজাড়

মোঃ সাইফুল ইসলাম খোকন,কক্সবাজার
  • আপডেট সময় রবিবার ১৫ নভেম্বর, ২০২০
  • ৪৮ বার পঠিত


কক্সবাজার উত্তর বন বিভাগের ৪টি রেঞ্জের সংরক্ষিত বনাঞ্চল থেকে শত বছরের মাদার ট্রি উজাড়, সংরক্ষিত বন ভূমি জবর দখল করে স্থাপনা নির্মাণ ও পাহাড় কেটে ইটভাটায় মাটি ও কাঠ সরবরাহ, ছড়া খাল থেকে বালি উত্তোলন ও স’মিলে গিলে খাচ্ছে প্রতিমাসে কোটি টাকার কাঠ।

এসব অনিয়ম দূর্নীতি অতীতের সকল রেকর্ড ভঙ্গ করেছে। বন কর্মকর্তা-কর্মচারী স্বল্পতার অযুহাত দেখিয়ে এসব বন বিটে নিয়োগ দেয়া হয়েছে অদক্ষ বনপ্রহরীদেরকে। এ সুযোগে বন জায়গিদাররা দূর্নীতিবাজ কর্মকর্তা-কর্মচারীদেরকে অনৈতিক আর্থিক লেনদেন করে বনাঞ্চল ধ্বংসের তান্ডব চলাচ্ছে।

এ অভিযোগ স্থানীয় পরিবেশ সচেতন জনগনের।
সরেজমিনে পরিদর্শনে জানা যায়, কক্সবাজার উত্তর বনবিভাগের ঈদগাও রেঞ্জের ভোমারিয়া ঘোনা, পূর্ণগ্রাম, ফুলছড়ি রেঞ্জের নাপিত খালী, ফুলছড়ি,খুটাখালী, মেধাকচ্ছপিয়া, ফাঁসিয়াখালী রেঞ্জের কাকারা বিটের সংরক্ষিত বন বিটের সংরক্ষিত বনভূমি জবর দখল করে অবৈধ ভাবে নির্মিত হয়েছে শত শত স্থাপনা। বিশেষত ফুলছড়ি রেঞ্জের মেধাকচ্ছপিয়া ও খুটাখালী বিটের সংরক্ষিত বনাঞ্চল থেকে শত বছর বয়সী মাদার ট্রি কেটে লম্বা তক্তা হিসেবে ব্যবহার হচ্ছে অবৈধ ভাবে নির্মিত ফিশিং ট্রলার।

ফুল ছড়ি রেঞ্জের ফুলছড়ি বনবিটে পাহাড় কেটে বিরাণ ভূমিতে পরিনত করছে পাহাড় গুলো। ফাঁসিয়াখালী রেঞ্জের কাকারা বিটের বনাঞ্চলের বৃক্ষের দৃশ্য এখন দেখা যায় না। ইতিপূর্বে সব উজাড় হয়ে গেছে। কাকারা বন বিটের বনাঞ্চলের ভিতরে নির্মিত হয়েছে শত শত ঘরবাড়ি ও দোকানপাট। ওই বিটের বিট কর্মকর্তা শিকলঘাট স’মিল এলাকায় ট্রাক ভর্তি ভারীওয়ালা বাঁশ থেকে অবৈধ লেনদেনে লিপ্ত থাকায় বন ভূমি পাহারা দেয়ার তার সময় নেই।

ফুলছড়ি রেঞ্জের মেধাকচ্ছপিয়া বিটকে বন বিভাগ জাতীয় উদ্যান ঘোষনা করলেও এ পর্যন্ত চোখে দেখা যায় মত কোন উন্নয়ন কর্মকান্ড হাতে নেয় নি। এ বিটে একসময় নারিস বনের মত হাজার হাজার শতবর্ষী গর্জন মাদার ট্রি ছিল। যা বাংলাদেশের কোন বন বিভাগে ছিলনা। এ বিটের শত শত মাদার ট্রি গর্জন গাছ সমুদ্র পথে মহেশখালী, কুতুবদিয়া, পেকুয়া উপজেলার রাজাখালীর আরবশাহ বাজারে নিয়মিত পাচার হচ্ছে।
কক্সবাজার সদর, চকরিয়া ও পেকুয়া উপজেলায় অবৈধ ভাবে নির্মিত হয়েছে কয়েশ স’মিল। এসব স’মিলে স্ব স্ব এলাকার সংঘবদ্ধ চোরাকারবারী দল ডাম্পার (মিনি ট্রাক) জীপসহ বিভিন্ন মাধ্যমে প্রতিদিন সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত লাখ লাখ টাকার চোরাই কাঠ সরবরাহ করলেও বন বিভাগ এসব কিছু দেখেও না দেখার ভান করছে। এসব ব্যাপারে কক্সবাজার উত্তর বন বিভাগের বিভাগীয় বনকর্মকর্তার কাছে জানতে চাইলে বিষয়টি তিনি দেখবেন বলে জানান। ইতিপূর্বে এসব অভিযোগের প্রেক্ষিতে খুটাখালী বিটের বিট কর্মকর্তাকে সার্সপেন্ড করা হয়েছে বলে তিনি দাবী করেন।

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..