রবিবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২০, ০৬:৪১ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
দীঘিনালায় পার্বত্য প্রেসক্লাব ও সবুজ পাতার দেশ’র উদ্যোগে দুই গৃহহীনের ঘর নির্মাণ যারা বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য বুড়িগঙ্গায় ভাসিয়ে দিতে চায় তাদের বঙ্গোপসাগরে ভাসিয়ে দিতে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার মানুষ প্রস্তুত নড়াইলে স্বপ্নের খোঁজে ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে শীতবস্ত্র পেলো এতিম শিশু, বেদেপল্লী ও মানসিক ভারসাম্যহীনরা রংপুরের পীরগঞ্জে চাকুরী দেওয়ার নামে টাকা আত্মসাৎ উলিপুরে কবর দখল করে বসতঘর নির্মাণ কুড়িগ্রামে দলিত ও বঞ্চিত সম্প্রদায়কে আদমশুমারী-২০২১ এ অন্তর্ভুক্তির দাবিতে মানববন্ধন কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলায় শিল্পী সমিতির কমিটি গঠিত কুড়িগ্রামে নাগেশ্বরী ও ফুলবাড়ী উপজেলার পুলিশের মাদকবিরোধী অভিযানে গাঁজা ও হিরোইন সহ ১ মাদক ব্যবসায়ী আটক দীঘিনালায় জায়গা-জমি সংক্রান্ত পারিবারিক কলহে যুবকের মৃত্যু নওগাঁর সাপাহারে ফেন্সিডিল সহ যুবক আটক পলাশবাড়ী পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ-বিএনপি ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের সম্ভাবনা মুজিববর্ষ উপলক্ষে নড়াইলে ফুটবল খেলায় মহাজন একাদশ চ্যাম্পিয়ন দীঘিনালায় বিরল রোগ আক্রান্ত ১০বছরের শিশু আরিফ বাঁচতে চায় দিনাজপুরে এন্টি টেররিজম ইউনিট কর্তৃক জঙ্গী সংগঠন আল্লাহর দলের আঞ্চলিক প্রধান আটক পলাশবাড়ী পৌরসভা নির্বাচন সুষ্ঠু হবে-নির্বাচন কমিশনার বেগম কবিতা খানম

কুড়িগ্রামে আমন ধানে পোকা, দিশেহারা কৃষক

রাকিবুল হাসান কুড়িগ্রাম জেলা প্রতিনিধিঃ
  • আপডেট সময় শুক্রবার ১৩ নভেম্বর, ২০২০
  • ৭৬ বার পঠিত

কুড়িগ্রামে নতুন ফসল ঘরে তোলার আগে আমন ধানের ক্ষেতে পাতা ব্লাস্ট ও কারেন্ট পোকার আক্রমণ বেড়ে গেছে। এতে করে এখন দিশেহারা অবস্থায় স্হানীয় কৃষকরা।

কুড়িগ্রাম সদর,, নাগেশ্বরী, ভূরুঙ্গামারী ও ফুলবাড়ী উপজেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে আমন ধানে ব্যাপকহারে ধানের পাতায় ব্লাস্ট ও কারেন্ট পোকার আক্রমণ দেখা গেছে। এই পোকার কারণে পাতার উপরের অংশের দিক থেকে প্রথমে কালো দাগ এবং ধীরে ধীরে গাছ শুকিয়ে আসছে। আবার কারেন্ট পোকার জন্য লালচে হয়ে যাচ্ছে ধানের গাছ। এতে প্রভাব পড়েছে ফসলের। স্হানীয় কয়েকজন কৃষক জানান আবহাওয়া ভালো থাকায় এবার ধানের ফলন ভালো হওয়ার কথা থাকলেও ধানে ব্লাস্ট ও কারেন্ট পোকার আক্রমণ দেখা দেয়ায় সেই আশা হারিয়ে ফেলেছেন তারা। বেশ কিছু বালাই নাশক স্প্রে করলেও শতভাগ ফলাফল পাওয়া যায়নি বলে জানান কৃষকরা।

কিটনাশক ব্যবসায়ী ৩/৪ জনের সঙ্গে সাংবাদিকদের সাথে কথা হলে তারা জানান, গত বছরের তুলনায় এবার আমন মৌসুমে ধানের ব্লাস্ট দমনে ব্যাকটেরিয়া ও ছত্রাক নাশক এবং কারেন্ট পোকা দমনে পাইমেট্রোজিন প্লাস, নাইটেনপাইরান, এসিফেড গ্রুপের কিটনাশক বেশি ব্যবহার করেছেন কৃষকরা।

সরেজমিনে কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার ভোগডাঙ্গা ইউনিয়নের উওর কুমরপুর মৌজার আবিরের ভিটা গ্রামের কৃষক নুর হোসেন,ফকরুল, আছির উদ্দিন, দবির, মধ্যকুমরপুর মৌজার বোনারভিটা গ্রামের কৃষক কার্তিক চন্দ্র বর্মন, মনিরুজ্জামান ও মাধবরাম মৌজার সর্দারপাড়া গ্রামের খলিলুর রহমান, আ: করিম জানান আমরা কোনদিন আমাদের গ্রামে উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তাদেরকে দেখিনি।

বর্তমান সরকার কৃষকদের দারপ্রান্তে পৌঁছে সেবাদানের জন্য উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তাদের নানা সুযোগ সুবিধা দিলেও কতিপয় উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তাদের কারণে সরকারের আসল উদ্দেশ্য ভেস্তে যাচ্ছে বলে সচেতন মহল মনে করছেন।

কৃষি সম্প্রসারন বিভাগ সূত্রে জানা গেছে এবার জেলায় আমন আবাদের লক্ষমাত্রা ধরা হয়েছে ১লক্ষ ১৫ হাজার হেক্টর,,, অর্জিত ১লক্ষ ১৯ হাজার ৮০৫ হেক্টর, বন্যায় ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ ৫৭৯৫ হেক্টর। কুড়িগ্রাম কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মোঃ শামসুদ্দিন মিঞা বলেন,, আমরা ব্লাস্ট এবং কারেন্ট পোকা দমনে সার্বক্ষণিক মনিটরিংং করছি। এ বিষয়ে কৃষকদের সঙ্গে উঠান বৈঠক করে বিভিন্ন পরামর্শ প্রদান করছি এবং এসব রোগ দূর করতে পরামর্শ সম্বনিত লিফলেট বিতরণ করা হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, বর্তমান আমন ফসলে তেমনটা রোগ বালাই নেই।

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..