রবিবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২০, ০৭:৩০ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
দীঘিনালায় পার্বত্য প্রেসক্লাব ও সবুজ পাতার দেশ’র উদ্যোগে দুই গৃহহীনের ঘর নির্মাণ যারা বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য বুড়িগঙ্গায় ভাসিয়ে দিতে চায় তাদের বঙ্গোপসাগরে ভাসিয়ে দিতে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার মানুষ প্রস্তুত নড়াইলে স্বপ্নের খোঁজে ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে শীতবস্ত্র পেলো এতিম শিশু, বেদেপল্লী ও মানসিক ভারসাম্যহীনরা রংপুরের পীরগঞ্জে চাকুরী দেওয়ার নামে টাকা আত্মসাৎ উলিপুরে কবর দখল করে বসতঘর নির্মাণ কুড়িগ্রামে দলিত ও বঞ্চিত সম্প্রদায়কে আদমশুমারী-২০২১ এ অন্তর্ভুক্তির দাবিতে মানববন্ধন কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলায় শিল্পী সমিতির কমিটি গঠিত কুড়িগ্রামে নাগেশ্বরী ও ফুলবাড়ী উপজেলার পুলিশের মাদকবিরোধী অভিযানে গাঁজা ও হিরোইন সহ ১ মাদক ব্যবসায়ী আটক দীঘিনালায় জায়গা-জমি সংক্রান্ত পারিবারিক কলহে যুবকের মৃত্যু নওগাঁর সাপাহারে ফেন্সিডিল সহ যুবক আটক পলাশবাড়ী পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ-বিএনপি ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের সম্ভাবনা মুজিববর্ষ উপলক্ষে নড়াইলে ফুটবল খেলায় মহাজন একাদশ চ্যাম্পিয়ন দীঘিনালায় বিরল রোগ আক্রান্ত ১০বছরের শিশু আরিফ বাঁচতে চায় দিনাজপুরে এন্টি টেররিজম ইউনিট কর্তৃক জঙ্গী সংগঠন আল্লাহর দলের আঞ্চলিক প্রধান আটক পলাশবাড়ী পৌরসভা নির্বাচন সুষ্ঠু হবে-নির্বাচন কমিশনার বেগম কবিতা খানম

চকরিয়ায় পাউবোর অধীনে উন্নয়ন কাজে ব্যাপক অনিয়ম, জিইও ব্যাগ চুরি করে ব্যবহার করেছে ইউরিয়া সারের বস্তা

মো.সাইফুল ইসলাম খোকন,কক্সবাজার
  • আপডেট সময় সোমবার ১৬ নভেম্বর, ২০২০
  • ৫৯ বার পঠিত



কক্সবাজারের পানি উন্নয়ন বোর্ডের অধিনে চকরিয়া উপজেলার বিভিন্নস্থানে মাতামুহুরী নদী শাসনের উন্নয় কাজে ব্যাপক অনিয়ম দূনীতির অভিযোগ উঠেছে স্থানীয়দের কাছ থেকে। তারা কোনাখালীর বিএমচর এলাকার কুইন্যার কুম এলাকার ২শ মিটার ও সাহারবিল ইউনিয়নের নাপিত পাড়া এলাকার ৩শ মিটার ভাঙ্গন প্রতিরোধে বস্তা ডাম্পিং কাজে ব্যাপক অনিয়ম হয়েছে বলে দাবী করেছেন।

এসব কাজে নিয়োজিত ঠিকাদার ও পাওবো’র পরিদর্শকের যোগসাজসে ডাম্পিং এলাকার জিইও ব্যাগ চুরি এবং প্রয়োজনীয় মাটি ভরাট না করে কম ব্যাগ ডাম্পিং ঝুঁকিপুর্ণ এ এলাকাটি আরো আতংকের জন্ম দিয়েছে।

সরজমিনে জানা যায়, চকরিয়ার মাতামুহুরী নদীর সাহারবিলের নাপিত পাড়া ও বিএমচর-কোনাখালী সীমানায় প্রতিবছর বর্ষায় কইন্যার কুমে বন্যার তোড়ে বেড়ী বাঁধ ভেঙ্গে বন্যায় কবলিত হয়ে ব্যাপক ক্ষতি হয় বসবাসরত স্থানীয় মানুষ ও ফসলাদীর। বন্য কবলিত এলাকার ব্যাপক ক্ষতি বিবেচনায় এনে বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড কর্তৃক বেড়ীবাধ পুনঃসংস্কার, নির্মান ও ব্লক বসানোর পরিকল্পনা করেন।

তারই প্রেক্ষিতে কুইন্যার কুমে বিগত ২০১৯-২০ অর্থবছরে ১০ হাজার বালির জিইও ব্যাগ ডাম্পিং করার অনুমোদন দেন সরকার। যথা নিয়মে অজ্ঞাতনামা ঠিকাদার দিয়ে কাজ সমাপ্তও করেন কিন্তু অভিযোগ উঠেছে ভাঙ্গন এলাকায় বেড়ীবাঁধে মাটি ভরাট করে টেকসই করা হয়নি। যেখানে বেড়ীবাঁধ ১২ ফুট থাকার কথা সেখানে আছে মাত্র ৩ ফুট বা তারও কম।

ডাম্পিং এ যে ব্যাগ ব্যবহার হয়েছে প্রয়োজনের তুলনায় অপ্রতুল। ফলে কাজের পরেও বেড়ীবাঁধ নিয়ে শংখা কাটেনি সুবিধাভোগী এলাকাবাসীর। অপর দিকে স্থানীয় লোকজন অভিযোগ করেছেন, সাহারবিল ইউনিয়নের ৪ নং নাপিত পাড়া এলাকার ৩ কিলোমিটার কাজে নিয়োজিত ঠিকাদার ও পাওবো’র পরিদর্শকের যোগসাজসে ডাম্পিং এলাকার জিইও ব্যাগ চুরি করে ব্যবহার করেছে ইউরিয়া সারের বস্তা এমনকি প্রয়োজনীয় মাটি ভরাট না করে কম ব্যাগ ডাম্পিং ঝুঁকিপুর্ণ এ এলাকাটি আরো আতংকের জন্ম দিচ্ছে।

এ ব্যাপারে পানি উন্নয়ন বোর্ড কক্সবাজারের নির্বাহী প্রকৌশলী প্রবীর কুমার গোস্বামীর সাথে তার টেলিফোন নাম্বারে ফোন দিয়েও কথা বলা সম্ভব হয়নি। স্থানীয় লোকজন এসব দূনীতি অনিয়মের বিরুদ্ধে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেয়ার দাবী জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট মন্ত্রনালয়ের কাছে।

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..