রবিবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২০, ০৬:৩০ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
দীঘিনালায় পার্বত্য প্রেসক্লাব ও সবুজ পাতার দেশ’র উদ্যোগে দুই গৃহহীনের ঘর নির্মাণ যারা বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য বুড়িগঙ্গায় ভাসিয়ে দিতে চায় তাদের বঙ্গোপসাগরে ভাসিয়ে দিতে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার মানুষ প্রস্তুত নড়াইলে স্বপ্নের খোঁজে ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে শীতবস্ত্র পেলো এতিম শিশু, বেদেপল্লী ও মানসিক ভারসাম্যহীনরা রংপুরের পীরগঞ্জে চাকুরী দেওয়ার নামে টাকা আত্মসাৎ উলিপুরে কবর দখল করে বসতঘর নির্মাণ কুড়িগ্রামে দলিত ও বঞ্চিত সম্প্রদায়কে আদমশুমারী-২০২১ এ অন্তর্ভুক্তির দাবিতে মানববন্ধন কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলায় শিল্পী সমিতির কমিটি গঠিত কুড়িগ্রামে নাগেশ্বরী ও ফুলবাড়ী উপজেলার পুলিশের মাদকবিরোধী অভিযানে গাঁজা ও হিরোইন সহ ১ মাদক ব্যবসায়ী আটক দীঘিনালায় জায়গা-জমি সংক্রান্ত পারিবারিক কলহে যুবকের মৃত্যু নওগাঁর সাপাহারে ফেন্সিডিল সহ যুবক আটক পলাশবাড়ী পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ-বিএনপি ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের সম্ভাবনা মুজিববর্ষ উপলক্ষে নড়াইলে ফুটবল খেলায় মহাজন একাদশ চ্যাম্পিয়ন দীঘিনালায় বিরল রোগ আক্রান্ত ১০বছরের শিশু আরিফ বাঁচতে চায় দিনাজপুরে এন্টি টেররিজম ইউনিট কর্তৃক জঙ্গী সংগঠন আল্লাহর দলের আঞ্চলিক প্রধান আটক পলাশবাড়ী পৌরসভা নির্বাচন সুষ্ঠু হবে-নির্বাচন কমিশনার বেগম কবিতা খানম

আমরা করোনা ভাইরাসের সেকেন্ড ওয়েভ অতিক্রম করছি বললেন রাজশাহী জেলা প্রশাসক

মোহাম্মদ আলী রাজশাহী ব্যুরোঃ
  • আপডেট সময় মঙ্গলবার ১৭ নভেম্বর, ২০২০
  • ৫৩ বার পঠিত

রাজশাহী জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল বলেছেন, এখন আমরা করোনা ভাইরাসের সেকেন্ড ওয়েভ অতিক্রম করছি। তাই যাতে কেউ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত না হই সেজন্য আমাদের মাস্ক পরতে হবে। যাতে আমরা সুস্থ থাকতে পারি। আমাদের সুস্থ থাকতে মাস্ককে ভ্যাকসিন হিসেবে ব্যবহার করতে হবে। তাই অবহেলা না করে সুস্থ থাকতে মাস্ক পরি।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষে রাজশাহী জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে মহানগরীতে মাস্ক বিতরণ ও জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে আয়োজিত কর্মসূচিতে রাজশাহী জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল এসব কথা বলেন।

আজ মঙ্গলবার সকালে মহানগরীর সাহেব বাজার জিরো পয়েন্টে এ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন, রাজশাহী জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল।নো মাস্ক, নো সার্ভিস’ বিষয়ে আব্দুল জলিল আরো বলেন, আমরা সব সরকারি দপ্তর ও বিপণীবিতানগুলোতে ‘নো মাস্ক, নো সার্ভিস’ কার্যক্রম চালু করেছি। এই কার্যক্রম চালু রাখতেও আমরা সর্বাত্মক চেষ্টা করছি। যাতে কেউ মাস্ক না পরে বিপণীবিতানগুলোতে না আসে।

এসময় রাজশাহী জেলা পুলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেন ও সিভিল সার্জন ডা. এনামুল হকসহ প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।কর্মকর্তারা জিরোপয়েন্ট এলাকায় বিপণীবিতানগুলোতে গিয়ে নগরবাসীকে মাস্ক পরার বিষয়ে সচেতন করেন এবং কয়েকজনকে মাস্ক পরিয়ে দেন। করোনা ভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় জনগণকে সচেতন করতে এ কার্যক্রম চলমান থাকবে বলে জানান জেলা প্রশাসক।
এসময় সিভিল সার্জন এনামুল হক বলেন, করোনা ভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় আমরা সবধরনের সর্বাত্মক প্রস্তুতি নিয়েছি। প্রথম দফায় রোগী বাড়লেও হাসপাতালের বেড ওভারফ্লো হয়নি। মাঝখানে কিছুটা শিথিলতা আসলেও এবার আমাদের পর্যাপ্ত আইসিইউ বেডসহ অন্যান্য সুযোগসুবিধা পর্যাপ্ত আছে। ফলে এবার করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। তারপর আমাদের চেষ্টা থাকতে হবে যাতে করোনা আক্রান্ত না হই। এ জন্য পর্যাপ্ত স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা উচিত।

এর আগে মহানগরীর জিরোপয়েন্ট এলাকায় মাস্ক পরিধান না করে চলাফেলার দায়ে কয়েকজনকে জরিমানা করে জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ আদালত।

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..