শনিবার, ১৬ জানুয়ারী ২০২১, ০২:০০ অপরাহ্ন

ঘোড়াঘাটে পৌর যুবলীগ নেতা ওয়াকার আহমেদ নান্নু চাঁদাবাজি ও সংখ্যালঘু নির্যাতন মামলায় আটক

mm
মনোয়ার বাবু (ঘোড়াঘাট) দিনাজপুর প্রতিনিধিঃ
  • আপডেট সময় মঙ্গলবার ২২ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ২১০বার পঠিত

দিনাজপুর ঘোড়াঘাটে চাঁদাবাজি এবং আদীবাসি সংখ্যালঘু নির্যাতন সহ পৃথক দুটি মামলায় ২১ ডিসেম্বর (সোমবার) আটক হয়েছে পৌর যুবলীগ নেতা ওয়াকার আহমেদ নান্নু (৩৬)।

থানা পুলিশ সূত্রে জানাযায়, শ্রীমতী আনলি মূর্মূ, স্বামী বিমল টুডু, শ্যামপুর (কলেজপাড়া) ঘোড়াঘাট নিজে বাদি হয়ে ওয়াকার আহমেদ নান্নু সহ অজ্ঞাত নামা ৫/৬ এর নামে সংখ্যালঘু নির্যাতন ও চাঁদাবাজির মামলা দায়ের করেন।

ঘটনাসূত্রে জানাযায়, সরকার কর্তৃক বরাদ্দকৃত জায়গায় বাদী বিভিন্ন ধরনের কাঠের এবং ফলের গাছ লাগান এবং পরবর্তীতে উক্ত জায়গা খাসখতিয়ানে অন্তভূক্ত হয় এবং খাসখতিয়ান থেকে অবমুক্ত করার জন্য বাদী বিজ্ঞ আদালতে মামলা দায়ের করেন।ইতিমধ্যে দীর্ঘ লালন পালন করার পর গাছ গুলো বেশ বড় এবং বিক্রয়ের উপযোগী হয়, বাদীর টাকার প্রয়োজন হলে তা বিক্রি করার জন্য সিন্ধান্ত নেন। বিক্রির কথা জানতে পেরে ওয়াকার আহমেদ নান্নু সহ আরও ৫/৬ জন বাদীর কাছে ১,৫০,০০০/ টাকা চাঁদা দাবি শ্লীলতাহানি সহ মারপিট এবং নানা ধরনের হুমকি প্রদান করে। পরে ওই আদীবাসি নারী বাদী হয়ে থানায় এজাহার দায়ের করে।

আরেক এজাহার সূত্রে জানাযায়, আলহাজ্ব মোঃ আমির হোসেন বাদি হয়ে ওয়াকার আহমেদ নান্নু সহ ৬ জন কে আসামি করে মামলা দায়ের করে।

জানাযায়,আলহাজ্ব আমির হোসেন সন্যাসীর চর, ফুলছড়ি, গাইবান্ধার একজন প্রাক্তন প্রধান শিক্ষক। নদী ভাঙ্গার কারণে বর্তমানে তিনি চকবামুনিয়া বিশ্বনাথপুরে বসতবাড়ির জন্য জায়গা ক্রয় করে বসবাস করছেন। বাদি অন্য থানা থেকে এসে জায়গা ক্রয় করেছে শুনে আসামিরা সশরীরে এসে বাদীর কাছে ৫,০০,০০০/ টাকা চাঁদা দাবি করে, বাদী দাবি কৃত চাঁদা দিতে না চাইলে মারপিট সহ হত্যার হুমকি প্রদান করে। পরে ওই প্রাক্তন প্রধান শিক্ষক বাদী হয়ে ছয় জনের নাম উল্লেখ করে ঘোড়াঘাট থানায় একটি এজাহার দায়ের করেন।

ঘোড়াঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আজিম উদ্দিন মামলা এবং আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, নান্নুর বিরুদ্ধে ঘোড়াঘাট থানায় চাঁদাবাজী ও ভূমি দখলের বেশ কয়েকটি মামলা রয়েছে। নতুন করে তার নামে আরো দুটি মামলা দায়ের করেছে ভুক্তভোগীরা। নতুন এই দুটি মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আজ মঙ্গলবার তাকে দিনাজপুর জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। অপরদিকে তাকে গ্রেপ্তারের পরে মেডিকেল টেষ্টে মাদক সেবনের প্রমান পাওয়ায় ভ্রাম্যমান আদালত তাকে ১বছরের সাজা প্রদান করেছে।

শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..