মঙ্গলবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২১, ০৮:০৮ পূর্বাহ্ন

বাংলাদেশ কোন গৃহহীন পরিবার থাকবে না-বিভাগীয় কমিশনার

mm
রাজশাহী প্রতিনিধি
  • আপডেট সময় বুধবার ৩০ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ৪৬বার পঠিত

রাজশাহী  বিভাগীয় কমিশনার হুমায়ুন কবীর খোন্দকার বলেন, মুজিবশত বার্ষিকী উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী গৃহহীন পরিবারদের গৃহনির্মান তৈরী করে দেবার একটি প্রকল্প গ্রহণ করেছে। প্রকল্পের অংশ হিসেব রাজশাহী বিভাগে যাদের জামিও নেই ঘরও নেই এমন ৬৭৭০ পরিবারকে প্রথম পর্যায়ে প্রধানমন্ত্রী তৈরী করে দিবেন।

রাজশাহী জেলার ৬৯২ টি ঘর নির্মাণ হচেছ। আশা করছি এই ঘর গুলো আগামী ১০ জানুয়ারী তৈরী শেষ হয়ে যাবে।তিনি আজ বুধবার সকালে রাজশাহী জেলার গোদাগাড়ী উপজেলার ভূমিহীন ও গৃহহীনদের জন্য বাড়ী নির্মাণ কাজের অগ্রগতি পরিদর্শনে এসে এসব বলেন। 

তিনি আরো বলেন,আপনারা শুনে খুশি হবেন যে, আগামী দিনে আর কোন নাগরিক থাকবে না যার কোন ঘর নেই। এই উদ্যোগটি প্রধানমন্ত্রী গ্রহণ করেছেন এটি বাস্তবায়ন হলে সারা বাংলাদেশ কোন গৃহহীন পরিবার থাকবে না।

আগামী ১৫ জানুয়ারী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সারা দেশে প্রায় ৫০ হাজার গৃহহীন পরিবার কে একযোগে ঘর প্রদান করবে বলে জানান।   তিনি আরো জানান,  জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভূূমিহীন ও গৃহহীনদের জন্য বাড়ী তৈরী করার অঙ্গিকার করেছিলেন। সেই অঙ্গিকার পুরণ হতে চলেছে অসহাস গৃহহীনদের জন্য।


শুধু মাত্র রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলায় ২৮০ টি পরিবার পাচ্ছে এই বাড়ী উপহার। একেকটি বাড়ী তৈরীতে ব্যায় হচ্ছে ১ লাখ ৭১ হাজার টাকা। এতে দুটি টিনসেড ঘর, একটি টয়লেট, ১ টি রান্নাঘর ও বারান্দা রয়েছে। এর আগে গৃহহীন যারা নিজেদের বাড়ী ও জায়গা জমি নেই তাদের কে চিহিৃত করে এসব বাড়ী বরাদ্দ করা হয়। এই সময় সাথে ছিলেন রাজশাহী জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল।


বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসক উপজেলার কালিদিঘি গ্রামটি ঘুরে দেখেন এবং উপকার ভোগীদের সাথে কথা বলেন। উপকার ভোগী শাহিনুর বেগম, শারমিন বেগম ও আসলাম আলী বলেন, আমরা নদী ভাঙ্গনে গৃহহীন ছিলাম। দীর্ঘদিন হতে খাস জমিতে বসবাস করে আসছি। স্ত্রী ছেলে সন্তান নিয়ে খুব কষ্টে জীবন যাপন করতাম।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের বাড়ী উপহার দিয়ে অনেক উপকার করেছে। আমরা এখন মাথা গোঁজার ঠাই পেলাম। উপকার ভোগী প্রত্যেকে শেখ হাসিনার দীর্ঘায়ু কামনা করেন ও ধন্যবাদ জানান।এর আগে বিভাগীয় কমিশনার হুমায়ুন কবীর খোন্দকার, উপজেলা প্রশাসনের সকল কর্মকর্তাদের সাথে মতবিনিময় করেন।

মতবিনিময় কালে তিনি, উপজেলা কৃষি অধিদপ্তর, প্রাণীসম্পদ অধিদপ্তন, উপজেলা মৎস্য অধিদপ্তরকে কৃষকদের কৃষি পণ্য উৎপাদান ও করোনাকালীন সময়ে ক্ষতিগ্রস্থ কৃষক, খামারি ও মাছ চাষীদের সরকারের ৪% সুদে ঋণ কার্যক্রম ও কৃষি পর্ণ বাজারজাত করনের ব্যাপারে শোনেন ও নির্দেশনা প্রদান করে যান। এছাড়াও সকল অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের নিষ্টা ও সততার সাথে কাজ করার আহ্বান জানান। 

এই সময় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলম, পৌর মেয়র মনিরুল ইসলাম বাব, ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল মালেক, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সুফিয়া খাতুন মিলি, গোদাগাড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: জানে আলম, সহকারী কমিশনার (ভূমি) নাজমুন নাহারসহ প্রশাসনের বিভিন্ন কর্মকর্তা, সাংবাদিক ও সুধিজন।বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসক গোদাগাড়ী ভূমি অফিসও পরিদর্শন করেন।

শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..

Adcash

Adcash