শুক্রবার, ২২ জানুয়ারী ২০২১, ০৯:৫৬ পূর্বাহ্ন

গোবিন্দগঞ্জের বড়দহ সেতুর টোল মওকুফের দাবীতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত

mm
আল কাদরি কিবরিয়া সবুজ, (গাইবান্ধা) প্রতিনিধিঃ
  • আপডেট সময় মঙ্গলবার ৫ জানুয়ারী, ২০২১
  • ৪০বার পঠিত

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার হরিরামপুর ইউনিয়নের বড়দহ সেতুতে আরোপিত টোল মওকুফের দাবিতে এলাকাবাসীর আয়োজনে ৫ জানুয়ারি মঙ্গলবার সকাল ১১টায় এলাকার শত শত নারী পুরুষ মানববন্ধনে উপস্থিত হয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে টোল মওকুফের আকুল আবেদন জানিয়ে এলাকাবাসী বলেন, এ সেতুর উপর দিয়ে দৈনিক হাজার হাজার মানুষের পারাপার হয়ে উপজেলা ও জেলা সদরে সংযোগ সেতুটি অত্যান্ত কার্যকর ভুমিকা রাখছে এবং উন্নয়ন কার্যক্রমে ধারাবাহিগতায় এক যুগান্তকারী পদক্ষেপ রেখেছে। মূলত ১৯৯৭ সালে সেতুটি নির্মাণ কাজ শুরু হলেও ২০০৭ এ বর্তমান সরকার দায়িত্ব কালিন সময়ে তিন ধাপে মোট ১৮ বছরে নির্মান কাজ সম্পন্ন হয়। প্রথম ধাপে ১৪৮ মিটর লক্ষ্য মাত্রা নিয়ে কাজ শুরু হলেও ৩টি স্প্যান নির্মাণের পর অনিবার্য কারনে নির্মান কাজ ১১ বছর বন্ধ থাকে। নদী ভাঙ্গনের কারনে পরবর্তীতে দ্বিতীয় দফায় ২০০৭ সালে নির্মাণ কাজের লক্ষ্যমাত্রা বেড়ে ৯১ মিটারে দাড়ায় আবার ২০০৭ সালে সেতুটির কাজ শুরু হয়ে একটি স্প্যান নির্মান হওয়ার পর অজ্ঞাত কারনে নির্মাণ কাজ বন্ধ হয়ে যায়। পরবর্তীতে ২০০৯ সালে বর্তমান সরকারের সহযোগিতা সেতুটির কাজ সম্পন্ন করার নিমিত্তে পুনরায় পুনরায় প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দ দিলে নির্মাণ কাজটি ২০১৫সালে সম্পন্ন হয়। গত ২০ আগষ্ঠ ২০১৫ সালে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সেতুটি উদ্বোধন করেন। তৃতীয় দফা নদী ভাঙ্গনের ফলে চুড়ান্ত নির্মাণ কাজ সমাপ্ত করতে সেতুটির দৈর্ঘ্য বেড়ে দাড়ায় ২৫৩.৫৬ মিটার। কিন্তু ২০১৫ সালে প্রণীত সেতুর নিতিমালা অনুযায়ী সেতুটির উপর সড়ক ও জনপথ বিভাগ কর্তৃক টোল আরোপ করা হলে তা গত ১ নভেম্বর ২০১৭ সালে পত্রের আলোকে টোল মওকুফ করে। বড়দহ সেতু টোল মওকুফ ও মহাসড়ক বাস্তবায়ন কমিটি আহবায়ক সাখাওয়াত হোসেন বিপ্লব, বলেন এলাকার গরীব দুঃখী, বানভাসী, খেটে খাওয়া মানুষের চলাচলের একমাত্র সেতুতে টোল দিয়ে চলাচল করতে অনেক সমস্যার মুখে পরতে হবে জনসাধারনের। তাই বক্তরা অবিলম্বে বড়দহ সেতুর টোল আদায় বন্ধের জোর দাবি জানান।

এসময় হরিরামপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম বাদল, হরিরামপুর ইউপির প্যালেন চেয়ারম্যান সাহারুল ইসলাম, ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি ফিরোজ কবির, সাধারন সম্পাদক সাজাহান আলী, রফিকুল ইসলাম, সাইফুল ইসলাম, আসাদুল ইসলাম লিটনসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..