মঙ্গলবার, ১৩ এপ্রিল ২০২১, ০৩:৩৫ পূর্বাহ্ন

রাঙামাটির কাউখালীতে নারীর লাশ উদ্বার, আটক-২

mm
পার্বত্যাঞ্চল প্রতিনিধিঃ
  • আপডেট সময় বুধবার ৭ এপ্রিল, ২০২১
  • ৭৩বার পঠিত

রাঙামাটি পার্বত্য জেলার কাউখালী উপজেলার বেতবুনিয়া মনাইপাড়া হতে রাউজানের ১নারীর লাশ উদ্বার করেছে কাউখালী থানা পুলিশ।

গতকাল রাতে এ লাশ উদ্ধার ও এজাহারভুক্ত ২জনকে আটক করে পুলিশ।

আটককৃতরা হলো- সুজন বড়ুয়া (৪৫) পিতা কালু বড়ুয়া। মো.সাইদুল ইসলাম (৩৫) (সিএনজি চালক) নিহতের স্বামী। উভয় সাং শমশের নগর গুচ্ছগ্রাম,পশ্চিম রাউজান, চট্টগ্রাম।

কাউখালী থানা সুত্রে জানা যায়, পার্শ্ববর্তী রাউজান উপজেলার ছত্তারপাড়া গ্রামের বাসিন্দা মো. হাছি মিয়ার মেয়ে শাহানা আক্তার(৩২) এর সহিত শমশের নগর এলাকার সুলতান আহম্মদের ছেলে মো. সাইদুল ইসলামের সাথে ১২বছর পুর্বে বিয়ে হয় এবং তাদের ঘরে ২টি পুত্র সন্তান রয়েছে।

একই এলাকার কালু বড়ুয়ার ছেলে সুজন বড়ুয়ার সাথে সাইদুলের বন্ধুত্ব সম্পর্ক গড়ে ওঠে। সে সুবাদে বন্ধুর বাড়িতে অবাধে আসা যাওয়া চলতো। একপর্যায়ে সাইদুলের স্ত্রী শাহানা আক্তারের সাথে সুজন বড়ুয়ার অবৈধ পরকিয়া প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

শাহানা আক্তার অভাব অনটনের কারনে চট্টগ্রাম গার্মেন্টসে চাকুরী নিয়ে মাঝে মধ্যে বাড়িতে আসতো।

গত ৪এপ্রিল শাহানা বাড়িতে এসে সন্ধায় সুজন বড়ুয়ার বাড়িতে যায়। খবর পেয়ে সাইদুল তার স্ত্রীকে আনতে গেলে তার স্ত্রী বাড়িতে আসেনি বলায় সে চলে আসে। তার স্ত্রী পরদিন চট্টগ্রাম গার্মেন্টসে চলে যাবেন বলে জানায়।

এদিকে, গত ৫এপ্রিল সোমবার রাত্রে বেতবুনিয়া মনারটেক মুখছড়ি গ্রামে এলাকাবাসি পাহাড়ের উপর ১মহিলাকে পড়ে থাকতে দেখে বেতবুনিয়া পুলিশ ফাঁড়িকে খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে শাহানা আক্তার কে মুমুর্ষ অবস্থায় উদ্বার করে রাউজান উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠালে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষনা করেন।

খবর পেয়ে নিহতের পিতা রাুউজান হাসপাতালে যান সেখান থেকে লাশ রাউজান থানায় নিয়ে গেলে রাউজান থানা পুলিশ লাশ কাউখালী থানায় পাঠিয়ে দেয়।

এ ব্যাপারে নিহতের পিতা হাছি মিয়া বাদি হয়ে ৫জনকে বিবাদি করে কাউখালী থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলা নং২,তারিখ ৬/৪/২১।

কাউখালী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. শহিদুল্যা পিপিএম জানান, আটককৃতদের রাঙামাটি জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে। নিহতের লাশ পোষ্ট মর্টেমের জন্য মঙ্গলবার রাঙামাটি জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

এজাহার ভুক্ত অন্যান্য আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..