রবিবার, ১৬ মে ২০২১, ০৯:০৭ অপরাহ্ন

মেধাবী শিক্ষার্থী লিমনকে মেডিকেল-এ ভর্তির অর্থ প্রদান করলেন গাইবান্ধা জেলা প্রশাসক

mm
আল কাদরি কিবরিয়া সবুজ, স্টাফ রিপোর্টার:
  • আপডেট সময় সোমবার ১২ এপ্রিল, ২০২১
  • ৬৫বার পঠিত


অতীতের যে কোন সময়ের তুলনায় শিক্ষার প্রসার ঘটাতে শিক্ষার্থীদের নানামুখী সহায়তাসহ একের পর গৃহীত বহুমুখী পদক্ষেপ বাস্তবায়ন করে চলেছে সরকার।পড়ালেখায় দেশ অনেকটা এগিয়েছে।এখন শহরই শুধু শহর নয়।ক্রমান্বয়ে গ্রাম পরিণত হচ্ছে শহরে।প্রত্যন্তপল্লীর অভাবী দিনমজুর কৃষকের ঘরেও আজকাল মেধাবী শিক্ষার্থীর সন্ধান মিলছে।এমন ধারাবাহিকতা অব্যাহত থাকলে সেদিন আর বেশি দূরে নয়।স্বল্প সময়ের মধ্যে দেশে শিক্ষার হার শতভাগ অর্জন সম্ভব হবে ইনশাআল্লাহ।

কৃষক পরিবারের হতদরিদ্র দিনমজুর বাবা জাহিদুল ইসলাম এবং ইমিলি বেগম দম্পতির একমাত্র ছেলে
লিমন সরকারের ভর্তি নিশ্চিত করতে অর্থ সহায়তা প্রদানকালে গাইবান্ধার জেলা প্রশাসক মো.আব্দুল মতিন একথা বলেন।

দারিদ্রতাকে জয় করে শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেলে এমবিবিএস ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ জেলার সাদুল্লাপুর উপজেলার ইদিলপুর ইউপির লক্ষীপুর গ্রামের লিমন সরকার।পরিবারের আর্থিক দৈন্যদশাসহ অভাব- অনটন আষ্টেপৃষ্টে জড়িয়ে থাকায় তার ভর্তি প্রায় অনিশ্চিত হয়ে পড়ে।অর্থ বিহীন শুধুমাত্র মেধাকে পুঁজি করে এগিয়ে যাওয়া লিমন ভর্তি পরীক্ষাতেও মেধার সাক্ষর রাখেন।অত্র কলেজের মেধা তালিকার ক্রমানুসারে সে ৬৩৮ নম্বরে স্থান করে নেয়।সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক সহ বিভিন্ন পত্র-পত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদন মাধ্যম অর্থাভাবে লিমনের ভর্তি অনিশ্চিত হয়ে পড়ার বিষয়টি জেলা প্রশাসকের নজরে আসে।পরবর্তিতে তিনি সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিয়ে তাকে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে আসতে বলেন।জেলা প্রশাসক তার মা-বাবার উপস্থিতিতে ভর্তির প্রয়োজনীয় অর্থের একটি চেক লিমনের হাতে হস্তান্তর ছাড়াও ভবিষ্যতে সম্ভাব্য সবধরনের সহযোগিতার দৃঢ় আশ্বাস প্রদানসহ লিমন পরিবারটিকে শুভ কামনা জানান।

এসময় আবেগাপ্লুত লিমন ও তার বাবা-মা ডিসির প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা জানান।চিকিৎসক হয়ে লিমন দেশের অসহায়-বঞ্চিত-অবহেলিত জনগোষ্ঠীর সেবায় আত্মনিয়োগের ইচ্ছে পোষণ করেন।

শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..