রবিবার, ১৬ মে ২০২১, ০৮:১৬ অপরাহ্ন

নড়াইলে হারভেস্টার মেশিনে বিনামূল্যে ধান কেটে দিচ্ছেন যুবলীগ নেতা

mm
ফরহাদ খান, নড়াইল
  • আপডেট সময় বৃহস্পতিবার ২২ এপ্রিল, ২০২১
  • ৪১বার পঠিত
হারভেস্টার মেশিনে বিনামূল্যে ধান কেটে দিচ্ছেন যুবলীগ নেতা ছবি- ফরহাদ খাঁন

হারভেস্টার মেশিনে বিনামূল্যে গরিব কৃষকদের বোরো ধান কেটে দিলেন নড়াইল জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক ওয়াহিদুজ্জামান। বৃহস্পতিবার (২২ এপ্রিল) দুপুরে নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার নলদী এলাকায় ইছামতি বিলে কৃষকদের ধান কেটে দেয়া হয়। এতে ভীষণ খুশি এলাকার কৃষকেরা।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক মিনা মরফিদুল হাসান শিল্পীসহ দলীয় নেতাকর্মী ও এলাকার কৃষকেরা।

নড়াইল জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক ওয়াহিদুজ্জামান জানান, করোনা সংকটে প্রধানমন্ত্রীর আহবানে সাড়া দিয়ে গরিব কৃষক ও বর্ষাচাষিদের বোরো ধান বিনামূল্যে কেটে দেয়ার ব্যবস্থা করেছেন তিনি। এছাড়া সামর্থ্যবান কৃষকদের ধান ন্যায্যমূল্যে কেটে দেয়া হবে। কৃষকদের ধান ঘরে উঠা পর্যন্ত এ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। ২০২০ সালেও করোনা সংকটে হারভেস্টার মেশিন দিয়ে বিনামূল্যে কৃষকদের বোরো ধান কেটে দেন যুবলীগ নেতা ওয়াহিদুজ্জামান। গত বছরের ৭ মে নড়াইল শহর সংলগ্ন মাছিমদিয়া বিলে এই ধানকাটার উদ্বোধন করেন তৎকালীন জেলা প্রশাসক আনজুমান আরাসহ প্রশাসনের কর্মকর্তারা।

ইছামতি বিল এলাকার কৃষক জয়নাল হোসেন, মতিয়ার রহমানসহ অনেকে বলেন, যুবলীগ নেতা ওয়াহিদুজ্জামান ভাই আমাদের জমির ধান বিনামূল্যে কেটে দিচ্ছেন, এতে আমরা ভীষণ খুশি। করোনার কারণে ধানকাটা মওসুমে শ্রমিক সংকট থাকায় হারভেস্টার মেশিন দিয়ে সহজে ঘরে ধান তুলতে পারছি আমরা। বর্তমানে দিনপ্রতি একজন ধানকাটা শ্রমিককে ৮০০ টাকা দিতে হচ্ছে। রোজা না থাকলে শ্রমিকদের সেই সঙ্গে তিনবেলা খাবারও দিতে হচ্ছে। তাও ঠিকমত শ্রমিক পাওয়া যাচ্ছে না।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, কৃষি মন্ত্রণালয়ের ৫০% ভতূক্তির মাধ্যমে প্রায় ১৫ লাখ টাকায় মেশিনটি কিনেছেন ওয়াহিদুজ্জামানের ভাই নড়াইলের মাছিমদিয়ার আনিচুজ্জামান।

এ ব্যাপারে সদর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা জাহিদুল ইসলাম বিশ্বাস জানান, স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায় একরপ্রতি ১২ থেকে ১৩ হাজার টাকা খরচ হলেও এই মেশিন দিয়ে ধানকাটাসহ অন্যান্য প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে একরপ্রতি খরচ হয় প্রায় ৬ হাজার টাকা। আর এক একর জমির ধান কাটতে সময় লাগে একঘণ্টা। এছাড়া ঘণ্টায় তেল খরচ ৬ থেকে ৭ লিটার। এ মেশিন একই সঙ্গে ধানকাটা, ঝাড়া ও প্যাকেজিংয়ের কাজ সম্পন্ন করে। করোনাভাইরাসের কঠিন সময়ে কৃষকদের কষ্ট লাগবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সারাদেশের কৃষকদের জন্য এ উদ্যোগ নিয়েছেন।

এ ব্যাপারে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর নড়াইলের উপ-পরিচালক দীপক কুমার রায় বলেন, এ বছর জেলায় ৪৮ হাজার ৪৯০ হেক্টর জমিতে বোরা ধান চাষাবাদ হয়েছে। উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা প্রায় ২ লাখ ৬ হাজার ৬১০ মেট্রিক টন চাল। নড়াইলে এখন পুরোদমে বোরো ধানকাটা চলছে। ভালোও ফলন হয়েছে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে কৃষকেরা সহজে ঘরে ধান তুলতে পারবেন।

শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..