মঙ্গলবার, ০২ মার্চ ২০২১, ০৮:২৭ পূর্বাহ্ন

পলাশবাড়ী ও ঘোড়াঘাট থানা পুলিশের যৌথ পদক্ষেপে অবৈধ লটারী খেলা বন্ধ

mm
আল কাদরি কিবরিয়া সবুজ, (গাইবান্ধা) প্রতিনিধি:-
  • আপডেট সময় রবিবার ২ আগস্ট, ২০২০
  • ২০৮বার পঠিত

প্রতি বছরের ন্যায় এবারও পবিত্র ঈদ-উল আযহা উপলক্ষে পলাশবাড়ী উপজেলার সীমান্ত ঘেষা করতোয়া নদীর পারে পর্যটকদের উপস্থিতি ছিলো লক্ষ করার মত। সৌন্দর্য বর্ধিত এই এলাকায় ইতোমধ্যেই পলাশবাড়ী উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে দৃষ্টি নন্দন পর্যটন এলাকা করার লক্ষে উদ্যোগ গ্রহন করা হয়েছে।সম্প্রতি ওই এলাকায় করতোয়াপাড়ার আমবাগানে স্মৃতি হাট ও বাজার স্থাপিত হওয়ায় জনসমাগম অতীতের যে কোন সময়ের তুলনায় বৃদ্ধি পেয়েছে।

অপরদিকে ঈদ উপলক্ষে গত ২/৩ দিন থেকে ওই এলাকায় বিভিন্ন খাদ্য সামগ্রী বিক্রয়ের পাশাপাশি একটি বিশাল চক্র বাশ দিয়ে ঘিরে লটারীর নামে প্রতারনার মাধ্যমে সাধারণ মানুষের নিকট থেকে হাজার হাজার টাকা হাতিয়ে নিচ্ছিলো। ঈদের দিন লটারী খেলা ঘোড়াঘাট সীমানায় অবস্থান করলে ঘোড়াঘাট থানার অফিসার ইনচার্জ আমিরুল ইসলাম তা বন্ধ করে দেয়।দিনাজপুর জেলার ঘোড়াঘাট থানা পুলিশ তাদের সীমানায় লটারী খেলা বন্ধ করে দিলে ঈদের দ্বিতীয় দিন তারা স্থান পরিবর্তন করে গাইবান্ধা জেলার পলাশবাড়ী উপজেলার সীমানায় বিশাল আকারে লটারীর স্থান করে নিয়ে সকাল থেকে সন্ধা পর্যন্ত এই খেলা চালিয়ে যাচ্ছিলো। লটারী খেলার খবরপেয়ে পলাশবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ মাসুদার রহমান মাসুদের নির্দেশে এসআই হাসিব সঙ্গীয় পুলিশ ফোর্সসহ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে আয়োজকরা ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে পুলিশ বাশ দিয়ে ঘেরা উল্লেখিত স্থানটি ভেঙ্গে লটারী খেলা বন্ধ করে দেয়।

এবিষয়ে ঘোড়াঘাট থানার ওসি আমিরুল ইসলাম জানান, জুয়া-মাদক-সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে পুলিশ জিরো টলারেন্স নীতি ঘোষনা করেছে।

পলাশবাড়ী থানার ওসি মাসুদার রহমান বলেন, মাদক- জুয়া-সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদের বিরুদ্ধে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

দুই থানা পুলিশের যৌথ পদক্ষেপ গ্রহনের ফলে লটারী খেলা বন্ধ করে দেওয়ায় দুই উপজেলার সচেতন মহলের নিকট বেশ প্রশংসায় ভাষছে পুলিশবাহিনী। সচেতনমহল আরও বলেন, পুলিশের এমন উদ্যোগের কারণে উঠতি যুবকেরা ধ্বংসের পথ থেকে রক্ষা পেলেন বলে তারা জানান।

শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..