শুক্রবার, ০৫ মার্চ ২০২১, ০৮:০৩ পূর্বাহ্ন

সাংবাদিক শাহিন সাগরের উপর হামলার ঘটনায় রাজশাহী জেলা বিএমএসএফ’র প্রতিবাদ

mm
মোহাম্মদ আলী, রাজশাহী ব্যুরো :-
  • আপডেট সময় শুক্রবার ৭ আগস্ট, ২০২০
  • ১৮২বার পঠিত

রাজশাহীর মোহনপুরে মামলা তুলে না নেওয়ায় সাংবাদিক শাহিন সাগরের উপর হামলা চালিয়েছে এক যুবক। এ ঘটনায় বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম(বিএমএসএফ) রাজশাহী জেলা শাখা তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার দিকে মোহনপুর উপজেলা চত্বরের কাছে তাকে এলোপাতাড়িভাবে কোপাতে থাকে ওই হামলাকারী। পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে মোহনপুর উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে এবং সেখান থেকে পরে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়।

স্থানীয়রা জানান, সাংবাদিক শাহীন এর আগেও হামলার শিকার হোন। ওই ঘটনায় কয়েকজনের নাম উল্লেখ করে তিনি একটি মামলা করেন। এ মামলায় এক যুবককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ জেলহাজতে পাঠায়। জেলহাজত থেকে গত বুধবার জামিনে মুক্ত হয়ে ওই যুবক আজ সন্ধ্যায় উপজেলা চত্ত¡রে শাহীনের ওপর ছুরি নিয়ে হামলা করে। এতে তিনি মারাত্মক আহত হোন। পরে তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়।
উল্লেখ্য গত ১১ মে সোমবার ২০২০ পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশের জের ধরে ধুরইল বাজার হতে সাংবাদিক শাহিন সাগর বাড়ি ফেরার পথে তার উপর হামলা চালানো হয়। ধুরইল বাজার হতে সাংবাদিক ও মানবাধিকারকর্মী শাহিন সাগর সঙ্গীয় শফিকুল ইসলাম পেশাগত দায়িত্ব পালন শেষে দুটি মোটরসাইকেল যোগে বাড়ি ফিরছিলেন।

পথে ধুরইল বাজার এলাকায় বাক্কারের নির্মাণাধীন বাড়ির সামনে পৌছালে আসামি কাউসারসহ অন্যান্য আসামীরা হত্যার উদ্দেশ্যে তাদের পথরোধ করে একযোগে ইটপাটকেল ছুড়তে থাকে। আসামীরা সাংবাদিক ও মানবাধিকারকর্মী শাহিন সাগরকে হত্যার উদ্দেশ্যে বড় দুটি ইট নিক্ষেপ করলে তার মাথা ফেটে রক্তাক্ত গুরুতর জখম হয়। পরে সঙ্গীয় শফিকুল ইসলামসহ স্থানীয়রা মিলে মোহনপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

মাথার জখমে কর্তব্যরত ডা: ৪ টি সেলাই দিয়েছেন। পরে সাংবাদিক শাহিন সাগর বাদী হয়ে গত ১৪ মে ২০ হামলার ঘটনায় কাউসারসহ চারজনের বিরুদ্ধে মোহনপুর থানায় ১৪৩/৩৪১/৩০৭/৩২৩/৩২৫/৫০৬/১১৪ ধারায় মামলা দায়ের করেন। মামলা নম্বর-৯। ওই মামলায় থানা পুলিশ আসামীদের আটক করে। আসামীরা জামিনে মুক্তি পেয়ে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন জায়গায় সাংবাদিক শাহিন সাগরকে মামলা তুলে নিতে চাপ দেয়।

এরই ধারাবাহিকতায় গত ৩রা আগষ্ট সোমবার রাত সাড়ে ৮ টার দিকে সাংবাদিক শাহিন সাগর ধুরইল বাজারে একটি দোকানে ফলমূল কেনার সময় আসামী একতার (২১) এসে শাহিন সাগরকে মামলা তুলে নিতে চাপ দেয়। তা না হলে তাকে প্রাণনাশের হুমকি দেয়া হয়। এছাড়াও তার মোটরসাইকেলের চাবি কেড়ে নিয়ে তাকে জোর করে ফাঁকা জায়গায় নেয়ার চেষ্টা করা হয়। তাকে আসামী বলে, তোকে আজ মেরেই ফেলবো। আরো বলে মামলা না তুলে নিলে তোর পরিবারের যে কোনো সদস্যকে খুন করা হবে।

এসময় তার সাথে থাকা মোহনপুর থানার ৩টি মামলার আসামী ধুরইল তালুকদার পাড়া এরশাদের ছেলে মোটরসাইকেল ছিনতাই চক্রের মূলহোতা সন্ত্রাসী রনি হোসেন (২৮) বলে আগামীকাল দিনের মধ্যে তুই মামলা তুলে না নিলে তোর দেহ থেকে মাথা আলাদা করে দেয়া হবে। আমার নামে মারামারি ছিনতাই মামলা আছে। তোকে দুনিয়া থেকে তুলে দিলে আরেকটা মামলা বাড়বে। তারা বলে তুই বেঁচে থাকতে চাইলে আর কোনদিন ধুরইল বাজারে পা দিবি না। আজ তোকে ছেড়ে দিলাম মামলা না তুলে নিলে কাল হবে তোর শেষ দিন। এ বিষয়ে শাহিন সাগর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দেন।
এ বিষয়ে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বিএমএসএফ রাজশাহী জেলা শাখা। এক যৌথ বিবৃতিতে সভাপতি আবু কাওসার মাখন ও সাধারন সম্পাদক শামসুল ইসলাম বলেন, সাংবিদকরা এই করোনাকালে সম্মুখযোদ্ধা হিসেবে কাজ করছে। অনেকে আক্রান্ত হয়েছে এবং মারাও গেছে। কিন্তু এইরকম সন্ত্রাশী হামলা মেনে নেওয়া যায় না। অবিলম্বে আসামীদের আইনের আওতায় এনে উপযুক্ত বিচারের দাবী জানাই। তানা না হলে বৃহত্তর আন্দোলনের ডাক দেওয়া হবে।
এ বিষয়ে মোহনপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোস্তাক আহম্মেদ বলেন, ধুরইল এলাকার মৃত আমানউল্লাহর ছেলে কাওসার হোসেন(২২) নামে একজনকে আটক করা হয়েছে। বাকী আসামীদেরকে আটকের প্রকিৃয়া চলছে।

শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..