রবিবার, ২৯ নভেম্বর ২০২০, ০৭:১৫ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
বাংলাদেশ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির কোভিড-১৯ এ ক্ষতিগ্রস্থ অসহায়-দুস্থের মাঝে খাদ্যসামগ্রী ও হাইজিন কিট বিতরণ উলিপুর উপজেলায় বেতন বৈষম্য দাবিতে কর্মবিরতি পালিত কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারীতে ৫ বছরের শিশুকে ধর্ষণ ৩দিন ব্যাপী অ্যাডভোকেসি,লবিং এবং নিগোসিয়েশন প্রশিক্ষণ উদ্বোধন কুড়িগ্রামে ২ হাজার হত দরিদ্র নারীদের মধ্যে স্বাস্থ্যসম্ম উপকরণ বিতরণ আন্তর্জাতিক নারী নির্যাতন প্রতিরোধ পক্ষ উপলক্ষে কালিয়ায় মানববন্ধন অনুষ্ঠিত আগামী ঘোড়াঘাট পৌরসভা নির্বাচনে সম্ভাব্য ০৪ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী সাইদুর রহমান সাজু দুর্গাপুরে ডিবি পুলিশের অভিযানে ১’শ ফেন্সিডিলসহ বোতলসহ গ্রেপ্তার ২ দুর্গাপুরে কয়লা ভর্তি ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে মোটরসাইকেল আরোহী যুবকের মৃত্যু খাগড়াছড়ি-ঢাকা রুটে নতুন সংযোজন বিলাসবহুল গ্রীন লাইন সেবা পানছড়িতে ব্রীকফিল্ডে সন্ত্রাসী হামলা চকরিয়া-পেকুয়ায় বনের কাঠে তৈরী হচ্ছে অবৈধ ফিশিং বোট ধামইরহাটে সোনার বাংলা সংগীত নিকেতনের বার্ষিক বনভোজন ধামইরহাটে ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন কুড়িগ্রাম সদরে হেরোইনসহ ৩ যুবক আটক

দায়ী কে?

এফ কবীর, ঘোড়াঘাট,দিনাজপুর।
  • আপডেট সময় সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ১৮০ বার পঠিত


রাতের অন্ধকার কেটে সোনালী সকালের নতুন সূর্যোদয়ে অনমনে তাকিয়ে দূর নিলীমায় জীবনের না মেলার অংক কষিয়ে যাচ্ছি।হঠাৎই কারো ডাকে সম্বিত ফিরে পেলাম ।আপনি কি আমাকে রিক্সার ব্যবস্থা করে সহযোগিতা করতে পারেন।

সদ্য ঢাকার বাস থেকে নামা কোন নারীর নমনীয় আহ্বান।কাউকে পাশে দেখতে না পেয়ে বুঝতে পারলাম কাজটি আমাকেই করতে হবে।

তিন সন্তানের জননী এই নারী রিতীমত একজন ভদ্রমহিলা বলাই শ্রেয় মনে কবছি।রিক্সাসার ব্যবস্থা হয়ে গেলেকৃত্রিম হাসির সহিত ধন্যবাদ জানিয়ে বিদায় নিলেন সাথে বলে গেলেন অনামিকা সবারতো সহেনা।

৮০ দশকের শেষ সময় দুরন্ত এক কিশোর কবীর জীবনকে আকাশ থেকে নিনাদে আনতে তৎপর । বিদ্যাপীঠে রঙ্গীন স্বপ্ন রচনা করে চলেছে প্রতিনিয়ত।সহসা কোন নারীর অযাচিত আর্বিভাব পরিবর্তীত করল জীবনের গতিপথ।

সমকালি শিক্ষাব্যবস্থা ক্রিড়া ও সাংস্কৃতিক বিষয় ছিল আলোচনার কেন্দ্র বিন্দু। তারপর ধীরে ধীরে ভালো লাগার কথা কবীর নিজ থেকেই উপস্থাপন করেন ঐ নারীকে।

কবীর মধ্যবিত্ত পরিবারে একধিক সন্তানের মধ্যে এক অখ্যাত ছেলে। পিতার সমান্য আয়েই সংসার চলত অনেক কষ্টে ।তাই সাধ্যের বাহিরে কাউকে পছন্দ কিংবা চাওয়ার অধিকার অলিক স্বপ্নের ন্যায়।তাই কবীরের ঐ নারীকে ভাল লাগার অধিকার থাকতে নেই এটা বেশ অপরাধের ন্যায় ।তাই অনেকটা তাচ্ছিল্য করেই ঐ নারী সেদিন কবীরকে বলেছিল অনামিকা সবার সহেনা।

৩১ বছর পর ভদ্র মহিলার কন্ঠে সেই ঢেনা সুর অনামিকা সবারতো সহেনা , মন্ত্র মুগ্ধের ন্যায় স্বচকিতে রিক্সার তিকে তাকতেই অস্পষ্ট রিক্সার আরোহীকে চিনতে আর কোন কষ্টই হলনা । এই সেই নারী যার নাম অনামিকা। বিদ্যাপিঠে কবীর যাকে পছন্দ করেছিল।

কবীর তার জীবনের প্রথম সম্পদ হারিয়ে ছিল বিনা জুয়ায়। সেই থেক এলোমেলো জীবনের এখনো ছন্দপতন হয়েই চলেছে।

তাইতো এতদিন পর আবারো ক্রন্দিত মন আজ কেঁদে কেঁদে হচ্ছে অশ্রু পাষাণ,নীরব যামিনীর কালো আধাঁরীর বুকেই ঝড়িয়ে দিলাম কয়েক ফোঁটা অশ্রু।

তারপর ও যদি ক্লান্তির অবসাদ জেগে উঠে মনে তাহলে গভীর নিশিতে হৃদয়ের বাতায়ণ খুলে তাকিয়ে দেখ ঐ দূর আকাশের গায় অসংখ্য তারার মাঝেই খুঁজে পাবে আমাকে ।আমি শেষ রাতের তারা হয়েই চেয়ে রব তোমার পানে।

চোখ দুটো জ্বলে ঝাপসা হয়ে আসছে ।দিগন্তের রৌদ্রের তেজ্যদিপ্ত ফাঁকা রাস্তা গুলো সরব হয়ে উঠছে মানুষের চলাচলে। কবীর আনমনেই একা হেটে চলেছে অজানার পথে।

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..