বুধবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২০, ০২:১২ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
সুন্দরবনের জামতলা থেকে ফাঁদ সহ পাঁচ হরিণ শিকারীকে আটক করেছে বনবিভাগ শীতার্থদের মাঝে ঘোড়াঘাট ইউএনও’র কম্বল বিতরণ রাজশাহীতে রাটা’র প্রথম সভা: সভাপতি আজাদ, সম্পাদক শরিফুল পলাশবাড়ীতে পাট বীজ চাষীদের প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত কুড়িগ্রামে গাঁজা ও ফেনসিডিলসহ আটক-২ পুঠিয়া পৌর নির্বাচনে মেয়র পদে ৪ জন ও কাউন্সিলর পদে ৩৮ জন প্রার্থীর মনোনয়ন পত্র দাখিল ভাস্কর্য বাঁচিয়ে রাখে একটি জাতির ইতিহাস ফুলবাড়ী পৌর নির্বাচনে প্রার্থীদের মনোনয়ন পত্র দাখিল সাপাহারে স্টার ডেকোরেট এর উদ্যেগে মাস্ক বিতরণ পুঠিয়ায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে বেতন বৈষম্য নিরসনের দাবিতে কর্ম বিরতি কালিয়ায় আ’লীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যাচেষ্টার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল নড়াইল পৌর মেয়রের মৃত্যুতে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত সাপাহারে মানবিক বাংলাদেশ সোসাইটির উদ্যগে মাস্ক বিতরণ নড়াইল ও কালিয়া পৌর নির্বাচনে মেয়র পদে আ’লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশীদের আবেদন কুড়িগ্রাম থানা পুলিশ বাস উপহার পেল আইজিপি কর্তৃক

নারী শিশু নির্যাতন মামলায় সাপাহারের স্কুল শিক্ষক শ্রী ঘরে!

মনিরুল ইসলাম, সাপাহার(নওগাঁ) প্রতিনিধিঃ
  • আপডেট সময় বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ৬৪ বার পঠিত


সহদোর ভাইয়ের স্ত্রীকে যৌতুকের চাপে ফেলে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করায় নারী শিশু নির্যাতন দমন আইনের মামলায় নওগাঁর সাপাহারের আশড়ন্দ উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আসাদুজ্জামান পল্টন (৩৮) নামে এক স্কুল শিক্ষককে জেল হাজতে পাঠিয়েছে বিজ্ঞ আদালত।

মামলা সূত্রে জানা গেছে, পত্নীতলা উপজেলার নোধুনী গ্রামের মৃত মোজাম্মেল হকের মেয়ে তানজিলা আফরিন নাহারের সাথে ধামইরহাট উপজেলার উপজেলার উদয় শ্রী গ্রামের সিরাজ উদ্দীনের ছেলে খোরশেদ আলম লিটনের সাথে ২০১১ সালে রেজিষ্ট্রি করে বিয়ে হয়। বিয়ের সময় ব্যাবসা করার নামে ১ লক্ষ টাকা যৌতুক নেয় খোরশেদ আলম লিটন। সংসার চলাকালীন সময়ে তাদের দুটি ছেলে বাচ্চা জন্ম নেয়। পরবর্তী সময়ে সে ব্যাবসা না করে ওই টাকা শেষ করে ফেলে। পরে ওই যৌতুক লোভী স্বামীকে সুখের আশায় নজিপুরে একটি জুতার দোকান করে দেয় মেয়ে পক্ষের অবিভাবকরা। কিন্তু জুতার দোকানের সমুদয় পুঁজি নষ্ট করে ফেলে লিটন। পরবর্তী সময়ে সে কাপড়ের দোকান করার জন্য আবার টাকা চায়। তার চাপে পড়ে আবারো তাকে কাপড়ের দোকান করে দেন তার স্ত্রী। কিন্তু যৌতুক লোভী স্বামী আবারো দুই লক্ষ টাকা যৌতুক আনার জন্য তার স্ত্রীকে চাপ প্রয়োগ করে। সে যৌতুকের টাকা আনতে অপারগতা প্রকাশ করলে তার সহদোর ভাই ও সাপাহার উপজেলার আশড়ন্দ উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আসাদুজ্জামান পল্টন , নজিপুর বাসস্ট্যান্ড এলাকার রেজাউল মাহমুদ শিপলুর স্ত্রী নাসরিন সুলতানার সহযোগীতায় তার স্বামী মারপিট করে তাকে বাড়ী থেকে তাড়িয়ে দেয়। এবং যৌতুক ছাড়া তার সাথে সংসার করা যাবেনা মর্মে জানিয়ে দেয়।

পরবর্তী সময়ে বাবার বাড়ীতে থাকা অবস্থায় ১৫ মার্চ ২০২০ তারিখে আফরিন নাহার জানতে পারে তার স্বামী তার অনুমতি ছাড়াই পত্নীতলা উপজেলার পাটিচরা গ্রামের জালাল উদ্দীনের মেয়ে জিয়াসমিনকে দ্বিতীয় বিয়ে করে সংসার করছে।

এমতাবস্থায় আফরিননাহার বাদী হয়ে উল্লেখিত তিন জনের বিরুদ্ধে বিজ্ঞ আদালতে নারী শিশু নির্যাতন দমন আইনের মামলা দায়ের করে। আসামীগন আদালতে জামিন আবেদন করলে জামিন না মঞ্জুর করে তাদের দুই সহোদর ভাইকে জেল হাজতে পাঠানো হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..