শনিবার, ২৩ জানুয়ারী ২০২১, ১১:১৪ অপরাহ্ন

গাইবান্ধায় থ্যালাসেমিয়া আক্রান্ত তিন সন্তানের চিকিৎসা করতে গিয়ে নি:স্ব বাবা-মা

mm
আল কাদরি কিবরিয়া সবুজ, (গাইবান্ধা) প্রতিনিধিঃ
  • আপডেট সময় রবিবার ১১ অক্টোবর, ২০২০
  • ২০৫বার পঠিত


সন্তানদের জীবন রক্ষা করতে গিয়ে নিয়তির নির্মম পরিহাসের শিকার হয়েছেন এক অসহায় মা-বাবা। গাইবান্ধার পলাশবাড়ি উপজেলার মনোহরপুর ইউনিয়নের পুটিমারি গ্রামের গোলজার রহমান দম্পতির তিন সন্তানই থ্যালাসেমিয়া রোগে আক্রান্ত। আর এই তিন সন্তানের চিকিৎসা ব্যয় নির্বাহ করতে গিয়ে নি:স্ব হয়ে পড়েছেন বাবা গোলজার রহমান মেহেদি।

অসহায় বাবা মেহেদি পেশায় ইজিবাইক চালক এবং স্থানীয় একটি মসজিদে জুম্মার নামাজের ইমামতি করেন। তিন সন্তানেরা হলেন, ১১ বছর বয়সী আব্দুর রহমান, মাহিনুর খাতুন (৮) এবং মাইশা মনি (৫)। তিন সন্তানই জন্মের দেড় থেকে দুই মাসের মধ্যে থ্যালাসেমিয়া রোগে আক্রান্ত হয়। সন্তানদের চিকিৎসা ব্যয় মেটাতে সামান্য জমিজিরেত যা ছিল তা বিক্রি করেন। পর্যায়ক্রমে বিক্রি করে দিতে হয়েছে উপার্জনের একমাত্র পথ ইজিবাইকটিও। তবুও সন্তানদের বাঁচিয়ে রাখতে যুদ্ধ করে যাচ্ছেন অসহায় এই বাবা-মা।

অনেক আশা ছিল সন্তানদের লেখাপড়া শেখাবেন, আদর স্নেহে বড় করে তুলবেন। কিন্তু স্বপ্ন আর আশায় বাধ সেধেছে তিন সন্তানের অসুস্থতা। ভালমন্দ খাওয়ানো পরের কথা চিকিৎসা করানোই তাদের পক্ষে দু:সাধ্য হয়ে পড়েছে। বাড়ির চারপাশে যখন অন্য ছেলেমেয়েরা খেলাধুলা করে, হাসি-আনন্দে মেতে ওঠে। তখন কষ্টে জর্জরিত মা-বাবার দু’চোখ বেয়ে বুক মোচড়ানো জল গড়িয়ে পড়ে। মনেমনে তাঁরা ভাবেন, সামর্থ্য থাকলে সন্তানদের সুচিকিৎসার ব্যবস্থা করতে পারতেন। তাদের তিন সন্তানও ওই ছেলেমেয়েগুলোর সাথে হাসিমুখে খেলাধুলায় মেতে উঠতে পারত।

তিন সন্তানের জন্য দু’তিনমাস পরপর তিন ব্যাগ করে রক্ত যোগাড়ের যুদ্ধে আজ তারা অনেকটাই ক্লান্ত, পরিশ্রান্ত। সন্তানদের বাঁচাবার যুদ্ধে অসহায় এই মা-বাবাকে জয়ী করতে এগিয়ে আসতে পারেন সমাজের বিত্তবান মানুষজন। এগিয়ে আসতে পারে সরকারী-বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তারা। এ গিয়ে আসতে পারেন সমাজের উদ্দিপ্ত তারুন্য।

শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..

Adcash

Adcash