শনিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২০, ০৫:৩৩ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
দিনাজপুরে এন্টি টেররিজম ইউনিট কর্তৃক জঙ্গী সংগঠন আল্লাহর দলের আঞ্চলিক প্রধান আটক পলাশবাড়ী পৌরসভা নির্বাচন সুষ্ঠু হবে-নির্বাচন কমিশনার বেগম কবিতা খানম খুলনা মহানগরীর শিরোমনি মধ্যপাড়া এলাকায় সেনা সদস্য আলামীন শেখের পুরুষাঙ্গ কেটে দিয়েছেন তার স্ত্রী কুড়িগ্রামের রাজার হাটে হিরোইন ও ইয়াবাসহ ২ যুবক আটক সুন্দর পৃথিবী ছেড়ে একদিন চলে যেতে হবে…” বিজয় সরকারের ৩৫তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ (৪ ডিসেম্বর) পলাশবাড়ী প্রেসক্লাবের নব-নির্বাচিত কমিটির দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত গোবিন্দগঞ্জে চা দোকানীর গলাকাটা লাশ উদ্ধার মাদক কারবারিদের বাড়ির সামনে ছবি টাঙ্গিয়ে দেওয়া হবে ভোটারের মন জয় করতে যাদু কুড়িগ্রাম পৌর নির্বাচনে মেয়র পদপ্রার্থীদের মধ্যে যাচাই-বাছাইয়ে ৫জনের মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলায় ভ্রাম্যমান আদালতের নির্দেশে মাদক সেবনের অপরাধে জেল ও জরিমানা খুলনা মহানগরী সহ ও খুলনা জেলার নয়টি উপজেলায় একযোগে ১৬টি ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান শ্রদ্ধা ও ভালবাসায় সমাহিত হলেন জনপ্রিয় শিক্ষক ও রাজনৈতিক নেতা দেওয়ান হালিমুজ্জামান ধামইরহাটে সড়ক ও জনপদের কাছে জনগণের অসন্তোষ-ক্ষোভ প্রকাশ গুইমারায় আলোচিত স্বামী হত্যায় দায়ে স্ত্রীসহ ৫জনের মৃত্যুদণ্ড

সাপাহারে মুক্তিযোদ্ধা সন্তানদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের

মনিরুল ইসলাম, সাপাহার(নওগাঁ) প্রতিনিধিঃ
  • আপডেট সময় সোমবার ২৬ অক্টোবর, ২০২০
  • ৭৮ বার পঠিত

নওগাঁর সাপাহারে উদ্দেশ্য প্রনোদিত ভাবে হয়রানীর লক্ষ্যে মুক্তিযোদ্ধা সন্তান শরিফুল ইসলাম ও তার ছোট ভাই ইউনিয়ন উপ সহকারী ভূমি কর্মকর্তা মিনারুল ইসলামকে জড়িয়ে বিজ্ঞ আদালতে মিথ্যা মামলা দায়ের করার অভিযোগ উঠেছে।

গ্রামবাসী সূত্রে জানা যায়, উপজেলার লালচাঁন্দা গ্রামের ইয়াসিন আলীর কন্যা শেফালীর সাথে একই গ্রামের আব্দুল ওয়াহেদের ছেলে সোহাগ বাবুর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। প্রেমের টানে সোহাগ বাবু শেফালীকে নিয়ে গত ১৮ ফেব্রুয়ারী ২০২০ তারিখে বাড়ী থেকে পালিয়ে যায়। পরবর্তী সময়ে তারা ফিরে আসলে দুই পরিবারের সম্মতিক্রমে সামাজিক ভাবে তাদের বিয়ে দেয়া হয়। বিয়ের পরে ছেলের বাড়ীতে দুইজন মিলে স্বামী স্ত্রী হিসেবে ঘর সংসার করতে থাকে। ইতো মধ্যে পার হয়ে যায় দীর্ঘ ৯ মাস। পরবর্তী সময়ে সংসারিক জীবেন সৃষ্ট পারিবারিক কলহের জের ধরে শেফালীকে তার মা-বাবা সোহাগের বাড়ীতে থেকে নিয়ে গিয়ে আটক করে রাখে ।এদিকে এলাকায় তার মেয়ে শেফালীকে পাওয়া যাচ্ছেনা মর্মে একটি গুজব ছড়িয়ে দেয়। পরে স্থানীয় গন্য মান্য ব্যক্তি বর্গের সমন্বয়ে গত ১১ অক্টোবর লালচান্দা গ্রামের শরিফুলের বাসায় একটি শালিশ বৈঠক বসে।

শালিশে শেফালীর বাবা ইয়াসিন মেয়ের নামে ৫ কাঠা জমি লিখে নেওয়ার জন্য প্রস্তাব উত্থাপন করলে ছেলেপক্ষ তা দিতে স্বীকার করে এবং মেয়ে পক্ষকে রেজিষ্ট্রির খরচ দিতে হবে মর্মে জানালে মেয়ে পক্ষ তা মানতে রাজী হয়না। উল্টো ছেলে পক্ষকে সব খরচ বহন করতে হবে বলে সাফ জানিয়ে দেয়। এতে করে সেখানে কোনরূপ মিমংসা না হওয়ায় স্থানীয় অসাধু মহলের প্ররোচনায় এবং পূর্ব প্রতিশোধের লক্ষ্যে গত ১৮ অক্টোবরে মেয়ের বিয়ে অস্বীকার পূর্বক সোহাগকে ১ নং আসামী করে মোট ৭ জনের বিরুদ্ধে একটি ধর্ষণ সংক্রান্ত মামলা দায়ের করে। যার মধ্যে ৪নং আসামী উপজেলার লালচাঁন্দা গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মজিদের ছেলে শরিফুল ইসলাম মমিনারুল ইসলাম তার সহোদর ভাই ইউনিয়ন উপ সহকারী ভূমি কর্মকর্তা মিনারুল ইসলাম সহ ৭ জনকে আসামী কের মিথ্যা মামলা দায়ের হয়। এছাড়াও উদ্যেশ্য প্রণোদিত ভাবে ২ নং আসামী হিসেবে সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের টিচার স্বপ্নাকে অভিযুক্ত করে। মূলত গ্রাম্য রাজনিতী সফল করার লক্ষ্যে এমন ঘটনা ঘটেছে বলে জানান নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এবাধিক ব্যক্তি।

এ বিষয়ে মুক্তিযোদ্ধা সন্তান ও ইউনিয়ন উপ সহকারী ভূমি কর্মকর্তা মিনারুল ইসলাম বলেন, “আমি জানি যে তাদের সামাজিক ভাবে বিয়ে হয়েছে। কিন্তু এর পরে বা আগে আমি কিছু জানিনা। আমাকে মিথ্যে হযরানী করার জন্য এ মামলায় ফাঁসানো হয়েছে”।
এ বিষয়ে মেয়ের বাবার সাথে মুঠোফোনে কথা হলে তিনি প্রথমে বিয়ের বিষয়টি অস্বীকার করেন। পরে বলেন “বিয়ে করেছে কি না করেছে ছেলে-মেয়েই ভালো জানে। এ বিষয়ে আমি কিছু জানিনা।

বিষয়টি নিয়ে ৬নং শিরন্টী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল বাকীর সাথে কথা হলে তিনি বলেন, “বিয়ের বিষয়টি আমি জানি। তারা ৭/৯ মাস সংসার করেছে এটাও জানি। তাদের সামাজিক ভাবে বিয়ে হয়। পরবর্তীতে কোন এক বিষয় নিয়ে দু পক্ষের মাঝে গন্ডগোল হলে আমার কাছে মিমংসা করার কথা। কিন্তু পরে কেউ আমার সাথে যোগাযোগ করেনি। বরং তারা আদালতে গিয়ে মামলা দায়ের করেছে”।
তবে এই মামলাটিতে প্রতিপক্ষরা মিথ্যার আশ্রয় নিয়েছে বলে জানিয়েছেন এলাকার একাধিক ব্যক্তি।

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..