রবিবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২০, ০৪:২৭ পূর্বাহ্ন

শিরোনাম :
দীঘিনালায় পার্বত্য প্রেসক্লাব ও সবুজ পাতার দেশ’র উদ্যোগে দুই গৃহহীনের ঘর নির্মাণ যারা বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য বুড়িগঙ্গায় ভাসিয়ে দিতে চায় তাদের বঙ্গোপসাগরে ভাসিয়ে দিতে মুক্তিযুদ্ধের চেতনার মানুষ প্রস্তুত নড়াইলে স্বপ্নের খোঁজে ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে শীতবস্ত্র পেলো এতিম শিশু, বেদেপল্লী ও মানসিক ভারসাম্যহীনরা রংপুরের পীরগঞ্জে চাকুরী দেওয়ার নামে টাকা আত্মসাৎ উলিপুরে কবর দখল করে বসতঘর নির্মাণ কুড়িগ্রামে দলিত ও বঞ্চিত সম্প্রদায়কে আদমশুমারী-২০২১ এ অন্তর্ভুক্তির দাবিতে মানববন্ধন কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলায় শিল্পী সমিতির কমিটি গঠিত কুড়িগ্রামে নাগেশ্বরী ও ফুলবাড়ী উপজেলার পুলিশের মাদকবিরোধী অভিযানে গাঁজা ও হিরোইন সহ ১ মাদক ব্যবসায়ী আটক দীঘিনালায় জায়গা-জমি সংক্রান্ত পারিবারিক কলহে যুবকের মৃত্যু নওগাঁর সাপাহারে ফেন্সিডিল সহ যুবক আটক পলাশবাড়ী পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ-বিএনপি ও স্বতন্ত্র প্রার্থীর মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের সম্ভাবনা মুজিববর্ষ উপলক্ষে নড়াইলে ফুটবল খেলায় মহাজন একাদশ চ্যাম্পিয়ন দীঘিনালায় বিরল রোগ আক্রান্ত ১০বছরের শিশু আরিফ বাঁচতে চায় দিনাজপুরে এন্টি টেররিজম ইউনিট কর্তৃক জঙ্গী সংগঠন আল্লাহর দলের আঞ্চলিক প্রধান আটক পলাশবাড়ী পৌরসভা নির্বাচন সুষ্ঠু হবে-নির্বাচন কমিশনার বেগম কবিতা খানম

চকবাজারে সন্ধান মিলেছে ইরফান সেলিমের নির্যাতন কেন্দ্র

অনলাইন ডেস্ক
  • আপডেট সময় সোমবার ২৬ অক্টোবর, ২০২০
  • ১৩১ বার পঠিত

পুরান ঢাকার চকবাজারের একটি বহুতল ভবনের ছাদের একটি কক্ষ থেকে হাতকড়া, ছোরাসহ কিছু জিনিস উদ্ধারের পর র‌্যাব বলছে, এই কক্ষকে ‘নির্যাতন কেন্দ্র’ হিসেবে ব্যবহার করতেন সংসদ সদস্য হাজী সেলিমের ছেলে ইরফান সেলিম।

ইরফান নিজেও একজন জনপ্রতিনিধি; পুরান ঢাকার সোয়ারি ঘাট, মিটফোর্ড রোড ও আশপাশের এলাকা নিয়ে গঠিত ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ৩০ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর তিনি।

আগের রাতে ধানমণ্ডিতে নৌবাহিনীর একজন কর্মকর্তাকে ‘মারধরের’ জেরে সোমবার দুপুরে সোয়ারি ঘাটের দেবী দাস লেনে হাজী সেলিমের বাড়িতে অভিযান চালায় র‌্যাব।

নয়তলা ওই ভবনের তৃতীয় ও চতুর্থ তলা মিলিয়ে থাকতেন ইরফান চৌধুরী। সেখানে লাইসেন্সহীন দুটি বিদেশি পিস্তল, এক রাউন্ড গুলি, একটি এয়ারগান, ৩৭টি ওয়াকিটকি, একটি হাতকড়া এবং বিদেশি মদ ও বিয়ার পাওয়ার কথা জানিয়েছেন র‌্যাব কর্মকর্তারা।

ওই বাসা থেকে ইরফান ও তার দেহরক্ষী মোহাম্মদ জাহিদকে গ্রেপ্তার করে মদ্যপান ও ওয়াকিটকি ব্যবহারের জন্য বছর করে কারাদণ্ড দিয়েছে র‌্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত।

অভিযান শেষে রাত ৮টা ১০ মিনিটের দিকে ওই বাড়ি থেকে ইরফান ও জাহিদকে বের করেন র‌্যাব সদস্যরা।

এ সময় র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারওয়ার আলম বলেন, ইরফান ও জাহিদকে টিকাটুলিতে র‌্যাব-৩ এর কার্যালয়ে নেওয়া হচ্ছে। সেখান থেকে তাদের কারাগারে পাঠিয়ে দেওয়া হবে।

সারওয়ার আলম এ সময় চকবাজারের আশিক টাওয়ারে ইরফানের ‘নির্যাতন কেন্দ্রের’ সন্ধান পাওয়ার কথা জানান।

তিনি সাংবাদিকদের বলেন, ইরফানের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী ১৬ তলা ওই ভবনের ছাদের একটি কক্ষে অভিযান চালানো হয়। সেখানে হকিস্টিক, হাতকড়া, ছোরা, মোটা দড়ি, গামছা, ইলেকট্রিক শক দেওয়ার তারসহ অন্যান্য সরঞ্জাম এবং ইয়াবা সেবনের সরঞ্জাম পাওয়া গেছে।

“এখানে বিভিন্নজনকে এনে নির্যাতন করতেন ইরফান।”

পরে ওই ভবনে গিয়ে দেখা যায়, আশিক টাওয়ারের ১৪তলা পর্যন্ত লিফট রয়েছে। এরপর সিঁড়ি ভেঙে দুই তলা উপরে উঠলে ছাদের একপাশে বড় একটি কক্ষ। তার সামনে রয়েছে ব্যাডমিন্টন খেলার ব্যবস্থা।

এ সময় ওই কক্ষ থেকে নির্যাতনের বিভিন্ন অস্ত্র-সরঞ্জাম জব্দ তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করছিলেন র‌্যাব সদস্যরা।

ঢাকা-৭ আসনের সংসদ সদস্য হাজী সেলিমের দ্বিতীয় সন্তান ইরফান বিদেশ থেকে লেখাপড়া করে এসে বাবার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে যোগ দেন। হাজী সেলিমের মদিনা গ্রুপের পরিচালকদের একজন তিনি।

এর মধ্যে গত ফেব্রুয়ারিতে অনুষ্ঠিত সিটি করপোরেশন নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ৩০ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে জয়ী হন তিনি।

রোববার রাতে ধানমণ্ডি এলাকায় হাজী সেলিমের গাড়ি থেকে নেমে নৌবাহিনীর একজন কর্মকর্তাকে মারধর করা হয়।

এ ঘটনায় সোমবার ধানমণ্ডি থানায় দায়ের করা মামলায় ইরফান সেলিম ছাড়াও হাজী সেলিমের প্রোটোকল অফিসার এবি সিদ্দিক দিপু, ইরফানের দেহরক্ষী জাহিদ ও গাড়িচালক মিজানুর রহমানের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত পরিচয় আরও তিনজনকে আসামি করা হয়।

তাদের বিরুদ্ধে বেআইনিভাবে পথরোধ করে সরকারি কর্মকর্তাকে মারধর, জখম ও প্রাণনাশের হুমকি দেওয়ার অভিযোগ এনেছেন মামলার বাদী নৌবাহিনীর লেফটেন্যান্ট মো. ওয়াসিফ আহমেদ খান।

মামলার এজাহারে বলা হয়, লেফটেন্যান্ট ওয়াসিফ রোববার রাত পৌনে ৮টার দিকে স্ত্রীকে নিয়ে মোটরসাইকেলে করে কলাবাগানের দিকে যাচ্ছিলেন। ল্যাবএইড হাসপাতালের সামনে সংসদ সদস্যের স্টিকার লাগানো একটি কালো রঙের ল্যান্ড রোভার গাড়ি (ঢাকা মেট্রো-ঘ-১১-৫৭৩৬) পেছন থেকে তার মোটরসাইকেলে ধাক্কা দেয়।

ওয়াসিফ ও তার স্ত্রী ধাক্কা সামলে মোটরসাইকেল থেকে নামার সঙ্গে সঙ্গে ওই গাড়ি থেকে জাহিদ, দিপু এবং অজ্ঞাতপরিচয় আরও দুই-তিনজন ‘অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ’ করতে করতে নেমে আসে এবং ‘মারধর’ শুরু করে।

তারা লেফটেন্যান্ট ওয়াসিফ ও তার স্ত্রীকে ‘উঠিয়ে নেওয়ার এবং হত্যার’ হুমকি দেয় বলেও মামলায় অভিযোগ করা হয়েছে।

ওই ঘটনার পরে একজন প্রত্যক্ষদর্শী মোবাইল ফোনে লেফটেন্যান্ট ওয়াসিফের বক্তব্য ধারণ করেন, যা ইতোমধ্যে ফেইসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে। সেখানে নৌবাহিনীর এই কর্মকর্তাকে রক্তাক্ত মুখে বলতে শোনা যায়, তিনি পরিচয় দেওয়ার পরও তাকে মারধর করা হয়েছে, তার স্ত্রীর গায়েও ‘হাত দিয়েছে’।

মামলা হওয়ার পরপরই গাড়ির চালক মিজানুর রহমানকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। আর বেলা ১২টার দিকে ইরফানদের বাসা ঘিরে ফেলে র‌্যাব।

নিউজটি শেয়ার করুন


এ জাতীয় আরো খবর..