রংপুরে প্রশাসনের যৌথ অভিযানে তিন টন সরকারি চাল উদ্ধার

আপেল মাহমুদ, রংপুর জেলা প্রতিনিধি
আপেল মাহমুদ, রংপুর জেলা প্রতিনিধি আপেল মাহমুদ, রংপুর জেলা প্রতিনিধি
প্রকাশিত: ১১:৪৪ অপরাহ্ন, ১০ সেপ্টেম্বর ২০২১ | আপডেট: ৪:৪৮ পূর্বাহ্ন, ২৬ অক্টোবর ২০২১

রংপুরে জেলা প্রশাসন, পুলিশ, র্যা ব ও জেলা খাদ্য কর্মকর্তার যৌথ অভিযানে তিন টন সরকারি চাল উদ্ধার করা হয়েছে। রংপুর নগরীর কোতয়ালী থানাধীন স্টেশন রোড এলাকায় পানি উন্নয়ন বোর্ড সংলগ্ন একটি ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালিয়ে এই বিপুল পরিমান চাল উদ্ধার করে আইনশৃংখলা বাহিনী।

জানা গেছে  সরকার কর্তৃক নির্ধারিত ১০টাকা কেজি দরে এই চালগুলো দরিদ্র জনগোষ্ঠির জন্য ওএমএস (খোলাবাজারের বিক্রি) করতে বরাদ্দ দেয়া হয়। কিন্তু তা না করে ওএমএস ডিলার ওই চাল ব্যবসায়ী সিরাজুল হক মুন্নার নিকট গোপনে বিক্রি করেন।


অবৈধভাবে চাল বিক্রির বিষয়টি জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থা (এনএসআই)  এর নজরে এলে তারা জেলা প্রশাসন, পুলিশ, র্যা ব ও জেলা খাদ্য কর্মকর্তাকে অবহিত করেন। এর পর শুক্রবার (১০ সেপ্টেম্বর) বিকেলে সরকারী ওই ৪টি সংস্থার যৌথ অভিযানে ওএমএস এর বিপুল পরিমান সরাকারী চাল উদ্ধার করা হয়। উক্ত অভিযান রংপুর জেলা প্রশাসকের নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট রাহাত কিন কুতুব এর নের্তৃত্বে পরিচালিত হয়। 

অভিযানের বিষয় নিশ্চিত করে তিনি জানান, আমরা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এখানে অভিযান চালিয়ে সরকারি তিন টন চাল উদ্ধার করকে সক্ষম হয়েছি। কিন্তু অভিযানের খবর পেয়ে দোকান মালিক পালিয়ে যায় ফলে আমরা তাকে গ্রেফতার করতে পারি নি। তিনি আরো বলেন- সেখানে বিক্রির উদ্দেশ্যে সরকারী ভাবে গরীবের জন্য ১০ টাকার খোলাবাজারের বিক্রির চাল গোপনে কালোবাজারে বেশি দামে বিক্রির নিমিত্তে মজুত করা হয়েছিল। 


 এ ঘটনায় উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক বাদি হয়ে রংপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের কোতয়ালী  থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। প্রাথমিকভাবে এ ঘটনায় জড়িত ব্যবসায়ী সিরজুল হক মুন্নার নাম পাওয়া গেছে। অন্যান্য অপরাধীদের বিষয়ে পুলিশ তদন্ত করছে তদন্ত রিপোর্টে এই জালিয়াতির সাথে জড়িত ব্যক্তিদের নিশ্চিত করে তাদের বিরুদ্ধেও আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।