রাজশাহীতে বাড়ীতে প্রবেশ করে ছুরিকাঘাতে পিরুকে হত্যার ঘটনায় অভিযুক্ত ২ ঘাতক গ্রেফতার

মোহাম্মদ আলী, রাজশাহী ব্যুরো
মোহাম্মদ আলী, রাজশাহী ব্যুরো মোহাম্মদ আলী, রাজশাহী ব্যুরো
প্রকাশিত: ৫:৪১ অপরাহ্ন, ০৭ নভেম্বর ২০২১ | আপডেট: ৫:৩৯ অপরাহ্ন, ৩০ নভেম্বর ২০২১

রাজশাহী মহানগরীর রাণীনগর এলাকায় বাড়ীতে প্রবেশ করে ছুরিকাঘাতে পিয়ারুল ইসলাম পিরু (৩৪)কে হত্যার ঘটনায় অভিযুক্ত ২ ঘাতককে গ্রেফতার করেছে বোয়ালিয়া মডেল থানা পুলিশ। এসময় আসামীদের কাছ থেকে হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত লোহার রড, জিআই পাইপ উদ্ধার হয়।

গ্রেফতারকৃত আসামীরা হলো রাজশাহী মহানগরীর বোয়ালিয়া মডেল থানার রাণানগরের মোঃ হাসিবুলের ছেলে মোঃ শিমুল (২১) ও সাধুর মোড়ের মোঃ তারিকের ছেলে মোঃ সোহানুর রহমান সোহান (২২)।

আজ ৭ অক্টোবর ২০২১ বেলা ১১.৩০ টায় আরএমপি সদরদপ্তরে সংবাদ সম্মেলনে রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের সম্মানিত পুলিশ কমিশনার জনাব মোঃ আবু কালাম সিদ্দিক মহোদয় বিষয়টি সাংবাদিকদের জানান।

ঘটনা সূত্রে জানা যায়, গতকাল ৬ অক্টোবর ২০২১ রাত ৭ টায় মোঃ পিয়ারুল ইসলাম পিরু (৩৪) তার বাসার সামনে ছিলো। ঐ সময়  আসামী মোঃ হাসান আলী জয় (২৭) তাকে তুমি বলে সম্বোধন করায় তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়।

উক্ত ঘটনার জেরে কিছুক্ষন পরে আসামী হাসান আলী জয়সহ কয়েকজন মিলে হাতে ধারালো চাকু, লোহার রড, জিআই পাইপ, বাঁশের লাঠি নিয়ে এসে বাড়ীতে প্রবেশ করে পিয়ারুলকে এলোপাথাড়ীভাবে মারধর করে এবং বুকে ও হাঁটুর উপর ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে হত্যা করে। 

পুলিশের জরুরী সেবা ৯৯৯-এর মাধ্যমে প্রাপ্ত সংবাদের প্রেক্ষিতে বোয়ালিয়া মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ জনাব নিবারন চন্দ্র বর্মন পিপিএম ও তার টিম দ্রুত ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে সাক্ষীদের সনাক্ত মতে ঘটনার সাথে সরাসরি জড়িত আসামী মোঃ শিমুল ও সোহানুর রহমান সোহানকে আটক করে। এসময় আসামীদের কাছ থেকে পিয়ারুলকে মারধরসহ হত্যার কাজে ব্যবহৃত লোহার রড, জিআই পাইপ উদ্ধার হয়। মৃতের বড় ভাই মোঃ নজরুল ইসলাম খসরুর লিখিত এজাহারের প্রেক্ষিতে বোয়ালিয়া মডেল থানায় একটি নিয়মিত হত্যা মামলা রুজু হয়েছে। 

গ্রেফতারকৃত আসামীদের জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, ইতোপূর্বে আসামী শিমুল ও তার অন্যান্য সহযোগীরা পিয়ারুলকে মেরে পা ভেঙ্গে দিয়েছিল। সেই ঘটনায় বোয়ালিয়া মডেল থানায় একটি মামলা রুজু হয়। 

মূলত ঐ মামলাকে কেন্দ্র করে আসামীরা পূর্ব শক্রতার জের ধরে পরিকল্পিতভাবে পিয়ারুলকে হত্যা করে।

অন্যান্য আসামীদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত রয়েছে এবং গ্রেফতারকৃত আসামীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।